কলকাতার বুকে করোনায় প্রথম মৃত্যু। সোমবার দুপুরে আমরি হাসপাতালে প্রয়াত হন দমদমের বাসিন্দা। তিনি শুক্রবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন শ্বাসকষ্ট নিয়ে। ছিলেন ভেন্টিলেশনে। সোমবার দুপুরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। পরিবারের সকলেই রয়েছেন কোয়ারেন্টাইনে। তাঁরাও বর্তমানে চিকিৎসাধীন এম আর বাঙুর হাসপাতালে। 

আরও পড়ুন, করোনা রুখতে লকডাউন শহর, আইন ভাঙলে হতে ২ বছরের জেলও

তিনি কয়েকদিন আগে সপরিবারে বিলাসপুর গিয়েছিলেন। ট্রাভেল করেছিলেন আজাদ হিন্দ এক্সপ্রেসে। পরিবারের ধারনা সেখান থেকেই ছড়িয়েছে সংক্রমণ। তিনি কাজ করতেন ফেয়ারলি প্লেসে। সেখানকার সব কর্মীদের কোয়ারেন্টাইনের নির্দেশ দেওয়া হল। কার কার সংক্রমণ ছড়িয়েছে তা এখনও স্পষ্ট নয়। ফলে এমনটাই অনুরোধ করা হল কর্মীদের। 

আরও পড়ুন, ছিল না তাঁদের কাছে ট্রেন বন্ধের খবর, লকডাউনে শিয়ালদায় আটকে ভিন রাজ্যের যাত্রী

প্রকাশ্যে এসেছে নয়া তথ্য। তাঁর ছেলে থাকেন লন্ডনে। তাই সংক্রমণ ছড়াতে পারে সেখান থেকেও। তাই খতিয়ে দেখা হচ্ছে এর মধ্যে তাঁর ছেলের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ হয়েছিল কি না। পরিবারের সকলেই রয়েছেন এই মুহূর্তে কোয়ারেন্টাইনে। তাঁদের হাতে দেওয়া হল না মৃতদেহ। ইলেকট্রিক চুল্লিতেই হবে সৎকার। 

করোনা মোকাবিলায় রক্ষা করুন নিজেকে, মেনে চলুন 'হু' এর পরামর্শ

শরীরে কীভাবে থাবা বসায় করোনা, জানালেন বিশেষজ্ঞরা

কী করে করোনার হাত থেকে রক্ষা করবেন আপনার বাড়ির বয়স্ক সদস্যদের, রইল তারই টিপস