রাজ্য়ে রেশন দোকান থেকে লুঠ হয়ে যাচ্ছে চাল। অভিযোগ, রেশনের চাল লুঠ করে ত্রাণ দিচ্ছেন তৃণমূলের নেতারা। এবার খোদ খাদ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মানুষের অধিকারের চাল কম দেওয়ার অভিযোগ আনলেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। অভিযোগের সত্যতা প্রমাণ করতে টুইটারে একটি ভিডিয়ো পোস্ট করেছেন কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী। যা নিয়ে রাজ্য় রাজনীতিতে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। যদিও এই ভিডিয়ো ক্লিরে সত্যতা যাচাই করেনি এসিয়ানেট নিউজ বাংলা।

প্রচারের লালসা, 'এইচআইভি হোম কাণ্ডে' মিমি চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে তোপ দিলীপের..

— Babul Supriyo (@SuPriyoBabul) April 18, 2020 

লকডাউনে রেশন বিলি নিয়ে রাজ্য়ের একাধিক জায়গা থেকে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। দলের নেতারা যে এই কাণ্ডে জড়িয়ে তা বিলক্ষণ বুঝেছেন মুখ্য়মন্ত্রী। ধমক দিয়েও কাজ হচ্ছে না। শেষে বাধ্য হয়েই রেশন বিলি নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ পেয়ে সরানো হল খাদ্যসচিবকে। কম্পালসারি ওয়েটিংয়ে পাঠানো হয়েছে খাদ্য দফতরের প্রধান সচিব মনোজ অগ্রবালকে। শুক্রবার ডিএম, এসপি-দের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী, জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারদের এই রেশন বিলি তদারকি করার নির্দেশ দিয়েছেন।

কেন্দ্র বলছে ২৮৭, বাংলার হিসেবে রাজ্য়ে করোনা আক্রান্ত ১৬২.

যদিও মুখ্য়মন্ত্রীর এই নির্দেশকেই হাতিয়ার করেছে বিজেপি। দলের তরফে টুইটারে এই নিয়ে সরব হয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। সোশ্য়াল মিডিয়ায় বাবুল লিখেছেন, মুখ্য়মন্ত্রীর এই নির্দেশ থেকেই পরিষ্কার লকডাউনে রেশনে দুর্নীতি হচ্ছিল। অবশ্য এরপরই একটি ভিভিয়ো ক্লিপ প্রকাশ্য়ে এনেছেন বাবুল ।  যেখানে কাউকে কনজিউমারকে চাল কম দেওয়ার কথা বলছেন খাদ্য়মন্ত্রী জ্য়োতিপ্রিয় মল্লিক।

করোনার কোপ এবার সেন্ট্রাল মেডিক্যাল স্টোরে, বেলেঘাটা আইডিতে ভর্তি শীর্ষ স্বাস্থ্যকর্তা.

ইতিমধ্য়েই এই ফুটেজ নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। খাদ্য়মন্ত্রীর এই ক্লিপ এডিটেড বলে বাবুলকে পাল্টা লিখেছেন অনেকেই। যা নিয়ে মুখ খুলেছেন বিজেপির সাংসদও। টুইটারে পাল্টা বাবুল লিখেছেন, অনেক তৃণমূলী লিখছেন খাদ্যমন্ত্রী আগে ও পরে কি বলেছেন সেটাও শুনতে! তাদের বলি, কিচ্ছু এসে যায়না,উনি আগে বা পরে কি বলেছেন। প্রশ্ন হল মিটিং-এ মন্ত্রী এটা বলেছেন কিনা? হ্যাঁ এটা উনি বলেছেন এবং অত্যন্ত অন্যায় করেছেন!লজ্জা করা উচিত আপনাদের মতো মানুষদের যারা অন্যায়কে সাপোর্ট করেন।