আবার রাজীবের বাড়িতে সিবিআই। এবার সম্ভবত স্থির হবে রাজীবের ভাগ্য।

ধরা দিতে রাজি নন রাজিব।  ঘোল খাওয়াতে কোনও চালের কসুর করেননি তিনি।  প্রথম বার তাঁর সহায় হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  পরে সুপ্রিম কোর্টের রক্ষাকবচ উঠে গেলে কোনঠাসা অবস্থাতেই নানা ভাবে সিবিআই-কে ঠেকিয়েছেন তিনি।  সিবিআই পার্ক স্ট্রিটে তাঁর বাড়ি, ভবানী ভবন, কোনও জায়গা বাদ রাখেনি তাঁকে খুঁজতে।  কিন্তু সিবিআইকে রীতি মতে ধন্দে রেখে শেষমেষ সিআইডি মারফত  তিনি খবর পাঠান, ব্যক্তিগত ছুটি তিনি রয়েছেন উত্তরপ্রদেশে। 

আরও পড়ুনঃ গ্রেফতার করা যাবে না রাজীব কুমার-কে, জমা থাকবে পাসপোর্ট, জানিয়ে দিল হাইকোর্ট

তারপরেও ঘটে গিয়েছে বেশ কিছু নাটকীয় ঘটনা। হাইকোর্ট গত শুক্রবার জানান দেয় ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পাসপোর্ট জমা দিতে হবে রাজীব কুমারকে। অর্থাৎ দেশ ছাড়তে পারবেন না রাজীব। এমনকি বাংলাও ছাড়তে পারবেন না তিনি। একই সঙ্গে জানিয়ে দেওয়া হয় পরবর্তী শুনানির আগে গ্রেফতার করা যাবে না তাঁকে।
পরবর্তী শুনানির তারিখ স্থির হয় ১২ জুন। 

এই ঘটনা পরম্পরার পাশাপাশি  রাজীব ঘনিষ্ঠ তথা বিধাননগর থানার প্রাক্তন ডিসিডিডি অর্ণব ঘোষ কে প্রায় ১৫ ঘন্টা জেরা করেছে সিবিআই উদ্ধার হয়েছে কয়েক ট্রাঙ্ক নথি।  এ দিন সিবিআই এর একটি টিম চকিতে রাজিব কুমারের বাড়িতে হানা দেন। সিবিআই সূত্রের দাবি ,তাঁর হাজিরা নিতেই এই অতর্কিতে হানা। 

সূত্রের খবর, ক্রমশ কোণঠাসা রাজিব আগামী সপ্তাহের শুরুতেই সিপিআই এর মুখোমুখি হতে পারেন।  তাঁকে তদন্ত করে এখন কী কী নতুন তথ্য উঠে আসে তা জানতে মুখিয়ে রয়েছে গোটা দেশ।