রাজারহাটের চিত্তরঞ্জন ক্যানসার হাসপাতালকে কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্র হিসেবে আগেই ঘোষণা করেছিল রাজ্য সরকার। এবার সেখানে শুরু হচ্ছে ৫০০ বেডের আইসোলেশন ওয়ার্ড। বেলেঘাটা আইডির পর করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার চাপ কমাতে অনেকটাই সাহায্য় করবে রাজারহাটের এই  করোনা-হাসপাতাল।

আরও পড়ুন, কলকাতায় করোনায় আক্রান্ত আরও ১, রাজ্য়ে সংখ্যা বেড়ে এবার ১০

 করোনা-হাসপাতাল তৈরির চিন্তাভাবনা আগেই শুরু করেছিল রাজ্য সরকার। সেই অনুযায়ী কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে প্রথমে পৃথক করোনা ওয়ার্ডের পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। পরে জানানো হয়, গোটা মেডিক্যাল কলেজেই করোনা চিকিৎসায় করা হবে। সেই অনুযায়ী অন্যান্য রোগীদেরও সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় অন্যত্র। এদিকে দেশের প্রথম করোনা হাসপাতাল হিসেবে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের নাম উঠে আসে। কিন্তু ক্রমাগত আক্রান্তের সংখ্য়া বেড়ে চলায়  এবার নিউ টাউনে আরও একটি পুরোদস্তর করোনা হাসপাতাল খুলল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। প্রথম বিদেশ ফেরত যাত্রীদের কোয়ারানটিনে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের অধীনে থাকা রাজারহাটের এই  ন্যাশনাল ক্যান্সার ইনস্টিটিউটে। এবার সেই কোয়ারানটিন সেন্টারকেই হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহার করবে রাজ্য সরকার। ইতিমধ্যেই সেখানে ৩০ জন নার্স, ২জন টেকনিশিয়ান, চিকিৎসক, দুই জন ডেপুটি নার্সিং সুপার, একজন নার্সিং সুপার সহ প্রায় ৫০ জন কর্মীকে পাঠানো হয়েছে। রাজারহাটের এই  করোনা হাসপাতালেই  থাকছে ৫০০টি বেড।

আরও পড়ুন, কথা না শুনে দেদার পেটাচ্ছে পুলিশ, মুখ্য়মন্ত্রীর কাছে গেল চিঠি


অপরদিকে ইতিমধ্যেই কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের প্রশাসনিক ভবনে ৩০০ বেডের আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে শনিবার থেকেই সেখানে ভর্তি নেওয়া শুরু হবে। মেডিক্যাল কলেজের নিউ বয়েজ বিল্ডিংয়েও আরও ৫০০ বেডের আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরির কাজ চলছে। তবে রাজারহাটের এই হাসপাতালের কাজ  আগামীকাল থেকেই শুরু হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন, করোনা আতঙ্কে জেরবার, মাস্ক পরে ফ্য়াশন শো কলকাতায়