একুশে বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের আগেই Crowdwisdom360-র জনমত সমীক্ষা। জনমত সমীক্ষায় সামনে এলে কলকাতার ফলাফলের পূর্বাভাস। জেলা ভিত্তিক জনমত সমীক্ষার রিপোর্টে জানা গেল কলকাতা জেলার বিধানসভা আসন গুলির ফলের পূর্বাভাস। Crowdwisdom360-র সমীক্ষা রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে তিলোত্তমার আটটি আসনের মধ্যে আধাআধি ভাগ নেবে বিজেপি-তৃণমূল। একনজরে দেখে নেওয়া যাক কলকাতার আসনগুলিতে কাকে এগিয়ে, কাকে পিছিয়ে রাখছে Crowdwisdom360-র জনমত সমীক্ষা।

আরও পড়ুন-বীরসা মুন্ডার জন্মদিনে ছুটি থাকবে রাজ্যে, বাঁকুড়া সফরে গিয়ে ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

এন্টালি-২০১৬-র বিধানসভা নির্বাচনে ৫২.৮ শতাংশ ভোট নিয়ে জয়ী হয়েছিল তৃণমূল। জনমত সমীক্ষার পূর্বাভাস বলছে একুশের ভোটেও ফের ওই আসন দখল নেবে তৃণমূল কংগ্রেস। ২০১৯-এর লোকসভায় ওই এলাকায় বিনা বাধায় ৫০ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্য়ায়।

আরও পড়ুন-'লাভ জিহাদ' আইনের লক্ষ্য কি বাংলার নির্বাচন, বড় প্রশ্ন তুলে দিল বিজেপির পুরোনো সঙ্গী

বালিগঞ্জ- ২০১৬ বিধানসভায় ৪৬.৬ শতাংশ ভোট নিয়ে ওই আসন দখল করেছিল তৃণমূল। একুশের নির্বাচনের পূর্বাভাস বলছে আবারও ওই আসন দখল নেবে ঘাসফুল শিবির। ২০১৯-এর লোকসভায় তৃণমূল ৫০ শতাংশ ভোট দখল করেছিল ওই এলাকায়।

রাসবিহারী-২০১৬-র নির্বাচনে ৪৫.৪ শতাংশ ভোট নিয়ে ওই আসনে জয়ী হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস। একুশের নির্বাচনের জনমত সমীক্ষায় পূর্বাভাস বলছে ওই আসন দখলে রাখবে তৃণমূল। যদিও, ২০১৯-এর লোকসভায় ওই এলাকায় এগিয়ে ছিল বিজেপি। তবে আগামী নির্বাচনে বিজেপির সেই গতি কমবে বলে মনে হয়।

জোড়াসাঁকো-২০১৬-র নির্বাচনে ৪৩.৮ শতাংশ ভোট নিয়ে জয়ী হয়েছিল তৃণমূল। কিন্তু একুশের নির্বাচনের পূর্বাভাস বলছে, আগামী বিধানসভায় ওই আসন দখল নিতে পারে বিজেপি। কেননা, ২০১৯-এর লোকসভায় ওই এলাকায় বিজেপির ভোট অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছিল।

মানিকতলা-২০১৬০র নির্বাচনে ওই আসনে জয়ী হয়েছিল তৃণমূল। কিন্তু আগামী নির্বাচনের পূর্বাভাস বলছে এবার বিজেপির পাল্লা ভারি। ২০১৯-এর নির্বাচনে ওই এলাকায় ধাক্কা খেয়েছে তৃণমূল। যদিও, আমপান ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব আগামী নির্বাচনে বিজেপিকে ফায়দা দিতে পারে।

আরও পড়ুব-২৬ নভেম্বর বামেদের ধর্মঘট, সমর্থনে হাওড়ায় মিছিল করল বামপন্থী শ্রমিক সংগঠন

কলকাতা বন্দর-২০১৬-র নির্বাচনে কলকাতা বন্দরে ৫৪.১ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছিল তৃণমূল। আগামী ভোটের জনমত সমীক্ষার পূর্বাভাস বলছে আবারও ওই আসন দখল নেবে ঘাসফুল শিবির। কেননা,গত লোকসভায় ওই এলাকায় ভাল ফল করেছিল। 

শ্যামপুকুর-গত বিধানসভা ভোটে ৪৬.৯ শতাংশ ভোট নিয়ে জয়ী হয়েছিল তৃণমূল। কিন্তু একুশের নির্বাচনের পূর্বাভাস বলছে, ওই আসনে এবার থাবা বসাতে পারে বিজেপি। গত লোকসভা ভোটে বিজেপি ওই এলাকায় ভাল ফল করেছিল।

চৌরঙ্গী-গত বিধানসভা ভোটে ৪৮.২ শতাংশ ভোট নিয়ে জয়ী হয়েছিল তৃণমূল। আগামী বিধানসভা ভোটের জনমত সমীক্ষার পূর্বাভাস বলছে ওই কেন্দ্র দখল নিতে পারে বিজেপি। আগামী নির্বাচনে বিজেপির সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করতে হবে তৃণমূলকে।