বৃদ্ধের রহস্য় মৃত্য়ু নিয়ে চাঞ্চল্য় ছড়াল কলকাতার রিজেন্ট কলোনি এলাকায়। বরফ ভর্তি বাক্স থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ৬৮ বছর বয়সী মৃত ব্য়ক্তির নাম  সমীর রঞ্জন সুর।  কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে সমীর বাবু মৃতদেহকে কেন সবার আড়ালে বরফ ভর্তি বাক্সে সংরক্ষণ করছিলেন। কলকাতার রিজেন্ট কলোনির বাসিন্দাদের অভিযোগ, মৃত ব্য়ক্তির শ্য়ালক বিশ্বনাথ দাশ,  বৃদ্ধের মৃত্য়ুর জন্য় দায়ী। ঘটনার খবর পেয়েই তদন্তে নেমেছে পুলিশ।  গ্রেফতার করা হয়েছে মৃতের শ্য়ালক বিশ্বনাথকে।

আরও পড়ুন, জাঁকিয়ে শীত কলকাতায়, ফের বৃষ্টির সম্ভাবনা

তদন্ত সূত্রে জানা গিয়েছে যে, নিহত সমীর রঞ্জন সুর বিভিন্ন রোগের কারণে গত কয়েক বছর ধরে বিছানাধীন ছিলেন। ৬৮ বছর বয়সী ওই বৃদ্ধের চিকিৎসা চলছিল। স্থানীয় সূত্রে খবর, বিশ্বনাথ তাঁকে খাওয়ানোর জন্য  বাসভবনে এসেছিলেন। তখন তিনি দেখেন যে তার শ্যালক সাড়া দিচ্ছে না। তাই তিনি তার বড় বোনকে, মৃত ব্যক্তির স্ত্রী এবং ভাগ্নেকে খবর দেন। যারা সেই মুহূর্তে, স্থানীয় ব্যক্তির সঙ্গে পাঞ্জাব সফরে রয়েছেন বলে তিনি জানিয়েছিলেন। তাই, বিশ্বনাথ স্থানীয় চিকিৎসকের কাছ থেকে একটি ডেথ সার্টিফিকেট সংগ্রহ করেছিলেন এবং মৃতদেহটি ঘরে রাখার ব্যবস্থা করেছিলেন। তবে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন যে বিশ্বনাথ বাবু, তার শ্য়ালক  সমীরবাবুকে দীর্ঘদিন ধরে নির্যাতন করেছেন। তাই তিনি  মারা গেলেন।

আরও পড়ুন, মৃত্য়ুর পর চোদ্দোদিন পার, ফ্ল্যাট থেকে তরুণীর পচাগলা দেহ উদ্ধার পুলিশের

এই ঘটনা প্রকাশ্য়ে আসতেই স্বাভাবিকভাবেই স্থানীয় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।  প্রতিবেশী হওয়া সত্ত্বেও কেন সমীর বাবুর মৃত্য়ু খবর কেন তাদেরকে জানানো হল না। মৃত্য়ু পর এতটা সময় পার হয়ে যাওয়া পরও কেন মৃত বৃদ্ধার শ্য়ালক মুখ বন্ধ রেখেছিলেন। তাই স্থানীয় সূত্রে পাওয়া অভিযোগকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন তদন্তকারীর দল। বৃদ্ধের ওই শ্য়ালককে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিশ।