কেষ্টপুরের এক আবাসনের ফ্ল্যাট থেকে আজ মঙ্গলবার উদ্ধার হল এক যুবতীর মৃতদেহ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, যুবতীর নাম শমিমা খাতুন। খবর ছড়াতেই এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে পুলিশ। 

শমিমা খাতুনের প্রতিবেশী তথা প্রফুল্ল কাননের গিরীজা আবাসনের বাসিন্দা সুখরঞ্জন তালুকদার জানান, শমিমার ফ্ল্যাট থেকে দুর্গন্ধ বেরোচ্ছিল। তার পরেই এলাকার প্রতিবেশীরা বাগুইহাটি থানার পুলিশকে খবর দেন। 

আরও পড়ুনঃ বাথরুমের মধ্যে জোড়া ট্রলি ব্যাগ, ভিতর থেকে উদ্ধার দম্পতির দেহ

পুলিশ এসে ঘরের দরজা ধাক্কা দিলে দরজা খুলে যায়। তার থেকেই বোঝা যায়, দরজা খোলা অবস্থাতেই শুধু ভেজানো ছিল। পুলিশ জানিয়েছে, ঘরের ভিতরে গেলে দেখা যায় শামিমার দেহ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে। দেহ ফুলে গিয়েছে  ও পচন ধরেছে বলে জানায় পুলিশ। অন্যদিকে সমস্ত কিছু জিনিসপত্র লণ্ডভণ্ড অবস্থায় পড়ে ছিল বলেও  পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। 

এলাকার বাসিন্দারা জানান গত ফেব্রুয়ারি মাস থেকে এই আবাসনে  ভাড়া নিয়ে থাকতেন শামিমা খাতুন ও সৌম্য। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আইটি সংস্থার কর্মী শামিমা ও সৌম্য। তাঁদের বিয়ে হয়েছিল কত জানুয়ারি মাসে। 

প্রসঙ্গত, ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ। মৃত্যুর কারণ আত্মহত্যা নাকি খুন, তা-ও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ঠিক কী কারণে এই পরিণতি তার জন্য জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ।