করোনা আবহে প্রথমবার। উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে জেলার প্রশাসনিক কাজকর্ম খতিয়ে দেখেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। সেখানে গিয়ে কোভিড পরিস্থিতিতে জেলা আধিকারিকদের কাজের খতিয়ান নিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি, জনস্বার্থে কাজ না হওয়ায় প্রশাসনিক আধিকারিকদের ধমক দিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফিরে দ্বিতীয়বার জেলা সফরে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। এবার তিনি জঙ্গলমহল দেখতে যাচ্ছেন।

আরও পড়ুন-'হিম্মত থাকলে কামদুনি-জলপাইগুড়িতে মিছিল করুন', মমতাকে চ্যালেঞ্জ লকেটের

নবান্ন সূত্রে খবর, আগামী ৬ ও ৭ অক্টোবর পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই দুই দিন পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামে প্রশাসনিক বৈঠক করার কথা রয়েছে তাঁর। ৬ অক্টোবর বিকেল ৪টেয় রেলশহর খড়গপুরে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন মমতা। ঠিক তার পরের দিন অর্থাৎ ৭ অক্টোবর জঙ্গলশহর ঝাড়গ্রামে প্রশাসনিক বৈঠক রয়েছে মমতার। দুই জেলার প্রশাসনিক বৈঠকে রাজ্যের উন্নয়নপ্রকল্প গুলির পর্যালোচনা বৈঠক করবেন মুখ্যমন্ত্রী।
আরও পড়ুন-'পথনাটিকা করছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী', মমতার প্রতিবাদকে কটাক্ষ করে চ্যালেঞ্জ লকেটের

করোনা আবহে জঙ্গলমহলে প্রশাসনিক বৈঠকে উত্তরবঙ্গের পথই অনুসুরন করতে চলেছেন মমতা। সব দফতরের আধিকারিকদের সশরীরে বৈঠকে না ডেকে কয়েকজনকে সামনে রেখে বাকিদের ভিডিও কনফারেন্সে উপস্থিত থাকার বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কৃষি, সেচ, ভূমি ও স্বরাষ্ট এবং মুখ্যসচিব থাকবেন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে।

আরও পড়ুন-'নবগঠিত কমিটিতে বিধায়দের গুরুত্ব নেই', ক্ষোভে দায়িত্ব ছাড়লেন তৃণমূল বিধায়ক

ঝাড়গ্রামের কোভিড পরিস্থিতির দিকটিও খেয়াল রাখছে জেলা প্রশাসন। সম্প্রতি, বেলপাহাড়িতে মাওবাদী পোস্টার পড়েছে। তা নিয়ে উদ্বিগ্ন জেলা প্রশাসন। এই অবস্থায় মুখ্যমন্ত্রীর জঙ্গলমহল সফর ঘিরে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে প্রশাসন।