লকডাউনের মাঝেই এবার শহরে বিদ্যুৎ বিপর্যয়। শুক্রবার বিকেলে আগুন লাগল সার্ভে পার্কে,  সিইএসসির সাবস্টেশনে। আঁধার নেমেছে দক্ষিণ কলকাতা  ও শহরতলির বিস্তীর্ণ এলাকায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে।

আরও পড়ুন: লকডাউনের সময়ে শহরে অস্বাভাবিক মৃ্ত্য়ু প্রৌঢ়ের

লকডাউনের কারণে এখন শহরের রাস্তাঘাট ফাঁকা। শুক্রবার বিকেলে যাঁরা বাইরে বেরিয়েছিলেন, তাঁরাই প্রথম দেখতে পান , দক্ষিণ কলকাতার সার্ভে পার্কে সিইএসসি-র সাবস্টেশনে আগুন লেগে গিয়েছে।  প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় দমকলের চারটি ইঞ্জিন। যুদ্ধকালীন তৎপরতা শুরু হয় আগুন নেভানোর কাজ।  সার্ভে পার্কে যান মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস-সহ একাধিক রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রীরা।  আগুন নেভাতে অবশ্য বিশেষ বেগ পেতে হয়নি দমকলকর্মীদের। দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চলে আসে।  এদিকে ততক্ষণে বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে দক্ষিণ কলকাতা ও শহরতলির বিস্তীর্ণ এলাকা।  এখনও পর্যন্ত যার খবর, অগ্নিকাণ্ডে বিদ্যুৎ পরিবহণের লাইনের ক্ষতি হয়েছে। তারজেরেই ঘটেছে বিপত্তি।  যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কাজ করছেন বিদ্যুৎ সংস্থার কর্মীরা। কিন্তু হলে কি হবে! লকডাউনের কারণে যে পর্যাপ্ত সংখ্যা কর্মী নেই! ফলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে। এদিকে শুক্রবার সকাল থেকেই অস্বস্তিকর গরমে নাজেহাল শহরবাসী। লোডশেডিংয়ের কারণে যে এলাকার মানুষ যদি রাস্তায় নামে আসেন, তাহলে কি হবে? উদ্বেগে রাজ্যের প্রশাসনিক আধিকারিকরা। 

আরও পড়ুন: রাতেও গরম অনুভূত হওয়ার আশঙ্কা, কলকাতা সহ রাজ্য়ে আপাতত বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই

উল্লেখ্য, এ রাজ্যে তো বটেই, করোনা প্রতিরোধ করে দেশজুড়ে এখন লকডাউন চলছে। এমন পরিস্থিতিতে বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক রাখার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারপরেও বিদ্যুৎ সংস্থায় কর্মী কম থাকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।