পার্কসার্কাসে শিয়ালদহ-সোনাপুর গামী ট্রেনে হঠাৎ ধোঁয়া  উড়তে দেখা যায়। ধোঁয়া দেখে রীতিমত হুড়োহুড়ি লেগে যায়। আতঙ্কে যাত্রীরা ট্রেন থেকে নেমে পড়েন। তবে কীভাবে এই ধোঁয়া তৈরি হল, শর্ট সার্কিট নাকি অন্য় কোনও কারণের জন্য় তা খতিয়ে দেখতে ইতিমধ্য়েই রেলের আধিকারিকরা খতিয়ে দেখছেন। যাত্রী নিরাপত্তায় ও সুরক্ষায় যাতে ত্রুটি না হয় সে জন্য় তৎপর হয়েছে রেল পুলিশ। যার দরুণ শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখায় ব্যাহত ট্রেন চলাচল।

আরও পড়ুন, আজও শীতের ব্যাটিং অব্যাহত, কাল থেকে ফের বাড়বে তাপমাত্রা

সূত্রের খবর, বুধবার সকালে অফিস টাইম হওয়ার দরুণ দক্ষিণ শাখার ওই লোকালে ছিল উচপে পড়া ভিড়। ট্রেনটি পার্ক সাকার্স স্টেশন পৌঁছনোর পর প্রথম কামরা থেকে হঠাৎ ধোঁয়া বেরতে দেখেন যাত্রীরা। আতঙ্কে বেশিরভাগ যাত্রীই ট্রেন থেকে নেমে পড়েন। প্রায় ২২ মিনিটে সেখানে দাঁড়িয়ে থাকে সোনারপুর লোকালটি। এদিকে ওই অবস্থাতেই বালিগঞ্জ স্টেশন পর্যন্ত ট্রেনটিকে নিয়ে যাওয়া হয়। বালিগঞ্জের ৪ নম্বর প্ল্যাটফর্মে রাখা হয়েছে ওই ট্রেনটিকে। সেখানেই যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হয়। রেলের তরফে জানানো হয়, আপাতত ট্রেনটিতে সফর করা যাবে না। অফিস টাইমে এমন ঘটনা ঘটায় চূড়ান্ত ভোগান্তি নিত্যযাত্রীদের। এরপর থেকেই দক্ষিণ শাখায় রেল পরিষেবা ব্যাহত।

আরও পড়ুন, কলকাতার ডাক্তার গৃহিনীর কামুকপনায় অতিষ্ঠ স্বামী, বিয়ে বাঁচাতে পায়ে 'ড্রাইভ' স্ত্রী-র

তবে ঠিক কীভাবে প্রথম কামরা আগুন লাগল, কেনইবা এত বেশি পরিমাণে ধোঁয়া বেরতে থাকে, তার কারণ এখনও জানা যায়নি। এরপরেই খবর দেওয়া হয় পূর্ব রেল কর্তৃপক্ষকে। সূত্রের খবর, বালিগঞ্জেই রেলকর্মীরা ট্রেনটিকে পরীক্ষা করবেন এবং প্রয়োজনে মেরামতিও করা হবে। তবে রেলকর্মীদের প্রাথমিক অনুমান, ব্রেক বাইন্ডিংয়ের সমস্যায় জন্যই হয়তো এ ঘটনা ঘটেছে। তার উপর নৈহাটি ও ইছাপুর স্টেশনের মাঝে স্বয়ংক্রিয় সিগন্যালিংয়ের কাজের জন্য বাতিল করা হয়েছে একাধিক ট্রেন, যার দরুন রোজই চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন নিত্যযাত্রীরা।