ইতিমধ্য়েই করোনা আতঙ্ক, থাবা বসিয়েছে কলকাতা সহ সারা দেশে। আর এই বিষয়ে যথেষ্ট পরিমানেই সতর্ক কেন্দ্রীয় তথা রাজ্য়ের স্বাস্থ্য় দফতর। তবে এই মুহূর্তে করোনা মোকাবিলায় কতটা তৈরি শহরের হাসপাতাল, জেনে নিন তার বিস্তারিত তালিকা।

আরও পড়ুন, উচ্চমাধ্যমিকে জারি ১৪৪ ধারা, প্রশ্ন ফাঁস রুখতে কড়া নজরদারি

' সিএমআরআই এবং বিএম বিড়লা হাসপাতালের করোনা ভাইরাস বা কোভিড -১৯ সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে আমরা  কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুসারে আমরা কঠোর প্রোটোকল এবং নীতি মেনে চলছি', জানালেন চিকিৎসক সিমারদ্বীপ গিল। তিনি আরও জানিয়েছেন, 'আমাদের  হাসপাতালের চত্বরে প্রবেশকারী এবং রোগীদের জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজারগুলির ঘন ঘন ব্যবহারের মতো কয়েকটি প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা অনুসরণ করা হয়েছে। আমরা সেই অনুযায়ী রোগীদের স্ক্রিনিং ও ট্রিবিজ করছি। এবং সন্দেহজনক করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য উপযুক্ত জায়গাও করে রেখেছি। যারা আমাদের হাসপাতালে ঘুরে দেখছেন, যদি কোনও রোগীর  জ্বর, কাশি বা শ্বাসকষ্টের মতো লক্ষণগুলি প্রকাশ পায়, তারা আমাদের  হেল্পলাইন নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন।তবে যতদূর যা জানা গেছে এখনও অবধি এমন কোনও ঘটনা ঘটেনি। আমরা আশ্বাস দিয়েছি যে আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই তবে আমাদের অবশ্যই সতর্ক হওয়া উচিত এবং প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত,'  বলেছেন সি কে বিড়লা হাসপাতালের সিওও চিকিৎসক সিমারদ্বীপ গিল।

আরও পড়ুন, এপ্রিলেই নিজের জেলার স্কুলে বদলি শিক্ষকরা, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে শুরু প্রক্রিয়া

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য়, বিশ্বের প্রায় ৯১টি দেশে কামড় বসিয়েছে প্রাণঘাতী ভাইরাস করোনা। এক লক্ষ পচিশহাজারেরও বেশি মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত। চিনে মৃতের সংখ্যা তিনহাজার ছাড়িয়েছে। ভারতেও আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে সত্তর ছাড়িয়েছে। করোনার আতঙ্কে  ইতিমধ্য়েই জেরবার কলকাতা-সহ গোটা রাজ্য। নোভেল করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে রাজ্যের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে গত কাল শুক্রবার নবান্নে জরুরি বৈঠক করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই পরিস্থিতি সামাল দিতে করোনা মোকাবিলায়, সচেতনতা বাড়াতে আরও একধাপ এগোল শহরের হাসপাতাল।

আরও পড়ুন, করোনা সন্দেহে পর্যবেক্ষণে ২৩, ঘুম ছুটল রাজ্য়বাসীর