নতুন বছরে, জানুয়ারি মাসের শুরুর দিকেই বাংলার চিটফান্ড তদন্তের জন্য একাধিক তদন্তকারী অফিসারদের বদলি করেছিল সিবিআই। সূত্রের খবর এবার  সারদা, নারদ ও  রোজভ্যালি মামলার তিন তদন্তকারী অফিসারকে কলকাতা ইউনিট থেকে সরানো হল কেন্দ্রীয় তদন্ত এজেন্সির তরফে। সরিয়ে দেওয়া হয়েছে আরও এক ডিএসপি পদমর্যাদার অফিসারকে। জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতেই এই বদলি হয়েছে। 

আরও পড়ুন, বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদ, যাদবপুরে বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ


সিবিআই সূত্রে খবর, সারদা কাণ্ডের তদন্তকারী অফিসার তথাগত বর্ধনকে কলকাতা থেকে দিল্লি ইউনিটে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তদন্তের প্রথম থেকেই সারদার তদন্তকারী অফিসার ছিলেন তথাগত বর্ধন। কয়েক মাস আগে কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে নিয়ে চাপানউতোর চলাকালীন বারবার সিবিআইয়ের টিম রাজীব কুমারের পার্কস্ট্রিটের বাড়িতে অভিযান চালাচ্ছিল। সেই সময়েও তদন্তকারী দলের নেতৃত্বে ছিলেন তথাগত বর্ধন। জানুয়ারির ৩ তারিখ এসপি পদমর্যাদার অফিসার জয়নারায়ণ রানাকে ভুবনেশ্বর থেকে কলকাতায় আনা হয়েছিল। অন্য এসপি শান্তনু কর ছিলেন কলকাতাতেই। তাঁর দায়িত্ব বদল করেছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। এএসপি পদমর্যাদার সঞ্জয় সিনহাকে দিল্লি থেকে কলকাতায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় সিবিআই।  

আরও পড়ুন, ভুয়ো তথ্য় দিয়ে খাস কলকাতার বুকে ব্যাঙ্ক জালিয়াতি, গ্রেপ্তার ৪


উল্লেখ্য়, গত বছর ২০১৯-এর শুরুদিকেই রোজভ্যালি মামলার তদন্তকারী অফিসার হিসেবে সিবিআইয়ের কলকাতা ইউনিটে পাঠানো হয়েছিল চোজম শেরপাকে। তিনি অফিসার হিসেবে আসার পর রোজভ্যালি তদন্তে একাধিক জিজ্ঞাসাবাদ হয়েছে। সূত্রে জানা গিয়েছে, এই তদন্তকারী অফসারকে পাঠানো হয়েছে ভুবনেশ্বরে। তাঁর সঙ্গেই কলকাতা থেকে অন্যত্র পাঠানো হয়েছে রোজভ্যালি মামলার অন্যতম তদন্তকারী ডিএসপি ব্রতীন ঘোষালকে। নারদ মামলার তদন্তকারী অফিসার রঞ্জিত সিনহাকেও কলকাতা থেকে দিল্লি পাঠানো হয়েছে। দুই দিন আগেই  শহর কলকাতার ১১টি স্থানে ম্যারাথন অভিযান চালিয়েছে ইডি। এখন শুধুই অপেক্ষা এরপর কোন পথে এগোবে তদন্ত।