শহরের বৃদ্ধাশ্রমের আবাসিকদের কাছে বই পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে কলকাতা বইমেলা কর্তৃপক্ষ। প্রাথমিকভাবে কলকাতায় বেশ কয়েকটি বৃদ্ধাশ্রমকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এই মুহূর্তে সেখানে কতজন আবাসিক রয়েছেন, কী ধরনের বই তাঁরা পছন্দ করেন, সে সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য় সংগ্রহ করা হচ্ছে। এই বিষয়ে কাজ শেষ হলেই বৃদ্ধাশ্রমে গিয়ে বই তুলে দিয়ে আসতে চান বইমেলা কর্তৃপক্ষ। 

আরও পড়ুন, চিনা ভাইরাসের আতঙ্ক, সংক্রমণ ঠেকাতে বিমানবন্দরে বসল স্ক্য়ানার

কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলা শুরু হবে আগামী ২৯ জানুয়ারি থেকে । আর এবছরের কলকাতা বইমেলার থিম রাশিয়াকে ঘিরে।বইপ্রেমীদের বই দেখা ও কেনার সুবিধার জন্য এবার বইমেলা প্রাঙ্গণে ফাঁকা জায়গা বাড়ানো হচ্ছে। বইমেলা চত্ত্বরে ঘোরাঘুরির পর কেউ চাইলে প্রাঙ্গণে যাতে একটু বিশ্রামও নিতে পারেন তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। মঙ্গলবার সেন্ট্রাল পার্কের মেলা প্রাঙ্গণ পরিদর্শনের পর এ কথা জানিয়েছেন পাবলিশার্স অ্যান্ড বুক সেলার্স গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক সুধাংশুশেখর দে।এদিন বইমেলার প্রস্তুতি কেমন হচ্ছে তা দেখতে বিধাননগরে সেন্ট্রাল পার্কের মেলা প্রাঙ্গণ পরিদর্শনে আসেন বইমেলার আয়োজকেরা।   

আরও পড়ুন, বাসের ভাড়া ন্যূনতম ৯ টাকা করার দাবি, ফের আন্দোলনে নামবে মালিকপক্ষ

বই প্রেমীদের বইমেলায় আসা-যাওয়ায় যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তার জন্য একাধিক ব্যবস্থা নিয়েছে পরিবহণ দপ্তর। পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছেন,  বইমেলায় যাতায়াতে যেন কারও কোনও অসুবিধা না হয়, সেবিষয়েও খেয়াল রাখা হয়েছে। সেইকারণে বিশেষ ৪০০ বাস চলবে বইমেলার দিনগুলিতে। শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট থেকে বাসগুলি চলাচল করবে।