সন্ধে হতেই বাড়ছে হাওয়ার গতিবেগ। প্রতিদিনই ঠান্ডা দমকা বাতাস দেখা দিচ্ছে মহানগর জুড়ে। কিন্তু কেবল হাওয়া দিয়েই ধোকা দিচ্ছে আবহাওয়া। মেঘ দেখা দিলেও বৃষ্টির দেখা নেই। যদিও হাওয়া অফিস বলছে, আজও ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে উত্তরবঙ্গে। বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হতে পারে দক্ষিণের কিছু জেলাতেও। কিন্তু খালি হাতে দিন গুনতে হবে কলকাতাকে।

কেন্দ্রের হিসেবে ১২৬, মমতা বলছেন ৯৫ জন আক্রান্ত.

আলিপুর আবহাওয়া দফতর বলছে, উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার জলপাইগুড়িতে ঝড়-বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সঙ্গে ঝোড়ো হওয়া বইবে এই সবএলাকায়। ৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত ঘন্টায় গতিবেগে একেক জায়গায় দমকা হাওয়া বইতে পারে। বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টির ও সম্ভাবনা। উত্তরবঙ্গের বাকি জেলাতেও বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা।

১০ জুন পর্যন্ত বন্ধ রাজ্যের স্কুল-কলেজ, নয়া ঘোষণা মুখ্য়মন্ত্রীর.

সবমিলিয়ে দক্ষিণবঙ্গের ১১ জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বিক্ষিপ্তভাবে দমকা হাওয়া বইতে পারে বাঁকুড়া পুরুলিয়া পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান হাওড়া হুগলি ঝাড়গ্রাম, পূর্ব পশ্চিম মেদিনীপুর,উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনাতে। এইসব জায়গায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

লকডাউন ভাঙছে 'মমতার সরকার', রাজ্য়কে কড়া চিঠি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের..

কলকাতার তাপমাত্রা স্বাভাবিকের ওপরে । আদ্রতাজনিত অস্বস্তি হবে। আজ সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল  ২৬.৫ ডিগ্রি।  স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। গতকাল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭.১ ডিগ্রি । স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ ৩১ থেকে ৮৯ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টি হয়নি ।

সোমবার নতুন করে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ঢুকছে উত্তর-পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে। পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাবে ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে পাকিস্তান সংলগ্ন রাজস্থানে। এছাড়াও ওড়িশা ও বাংলাদেশ আরও দুটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। দক্ষিণ-পশ্চিমে পুবালি হাওয়ার সংঘাতে ঝড় বৃষ্টি  উত্তরপূর্ব, পূর্ব ও মধ্য ভারতে হতে পারে। ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণের কয়েকটি রাজ্যেও। গুজরাতে প্রবল তাপপ্রবাহের পূর্বাভাস রয়েছে। নববর্ষের দিন থেকে উত্তরবঙ্গে ঝড়-বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। বুধবার রাজ্যজুড়ে ঝড় বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে।