শুক্রবার পর্যন্ত স্থায়ী হল আইনি রক্ষাকবচের মেয়াদ। কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে সোমবার পর্যন্ত সুযোগ দিলেন না বিচারপতি। ঘটনাচক্রে এদিনই সারদা মামলায় রাজীবকে তলব করে সিবিআই।

সবকিছুর একটা শেষ হওয়া প্রয়োজন। বহুদিন ধরেই এই মামলা চলছে। সিবিআইয়ের আইনজীবীও তো সওয়াল করবেন। বৃহস্পতিবার কলকাতা হাইকোর্টে সিবিআইয়ের নোটিস খারিজের মামলায় এমনই মন্তব্য় করলেন বিচারপতি মধুমতী মিত্র। এদিন মোখিকভাবে তাঁর মক্কেলের জন্য আগামী সোমবার পর্যন্ত আইনি রক্ষাকবচের মেয়াদ প্রার্থনা করেন রাজীবের আইনজীবী মিলন মুখোপাধ্যায়। যা খারিজ করে দেনে বিচারপতি। পাশাপাশি তিনি বলেন,শুক্রবার পর্যন্ত এই রক্ষাকবচের মেয়াদ রইল। ফলে কলকাতা হাইকোর্ট থেকে রাজীব কুমার আর আইনি রক্ষাকবচ পাবেন কিনা তা নিয়ে সন্দেহ দানা বেঁধেছে। 

আরও পড়ুন :দিলীপের বাড়িতে দেবশ্রী! যোগদান ঘিরে জল্পনা

আরও পড়ুন :নিম্নচাপের জেরে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাত! দুপুর থেকেই ভাসবে দক্ষিণবঙ্গ

অতীতে কলকাতা হাইকোর্টের পূজা অবকাশকালীন বেঞ্চের বিচারপতি প্রতীক প্রকাশ বন্দ্যোপাধ্যায় অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশে জানিয়েছিলেন, রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে সিবিআই কড়া পদক্ষেপ (গ্রেফতারি) করতে পারবে না।  দৈনন্দিন শুনানি করে মামলার ফয়সালা করতে বলা হয়েছিল রেগুলার বেঞ্চকে। পাশাপাশি রাজীব কুমারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল, সিবিআই  যখনই তাঁকে ডাকবে,যেতে হবে রাজীবকে। 

সেই অনুযায়ী বিচারপতি মধুমতী মিত্রর রেগুলার বেঞ্চে রাজীবের মামলার শুনানি শুরু হয়। সম্প্রতি রাজীবের আইনজীবী মিলন মুখোপাধ্যায় টানা কয়েকদিন ধরে সওয়াল চালিয়ে যাচ্ছেন। বিচারপতি মধুমতী মিত্র কয়েকদিন ধরেই উচ্চপদস্থ ওই পুলিশকর্তার কৌঁসুলিকে দ্রুত সওয়াল শেষ করতে বলছেন। কিন্তু তাতে কোনও কাজে হয়নি। উল্টে মিলন মুখোপাধ্যায়ের দীর্ঘ সওয়ালের জেরে আজ বিচারপতি খানিক কড়াভাবেই বলেন, "সবকিছুর একটা শেষ হওয়া প্রয়োজন। সিবিআই এর আইনজীবীও তো সওয়াল করবেন।" 

আরও পড়ুন :রাণুর নকল করে বিতর্কে অভিনেতা, থানায় অভিযোগ হতেই চাইলেন ক্ষমা

আরও পড়ুন :কেমন আছেন বুদ্ধদেব, রাজ্যপাল সাক্ষাতে ছবি এল প্রকাশ্যে

এদিকে সিবিআই রাজীবকে ফের ডেকে পাঠানো প্রসঙ্গে মিলন মুখোপাধ্যায় এদিন শুনানির সময় বলেন, "সারদা মামলায় সাক্ষী হিসেবে ছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী মদন মিত্র। তাঁকে সাক্ষী হিসেবেই সকাল সাড়ে দশটায় সিবিআই দফতরে ডাকা হয়েছিল। কিন্তু বিকেল সাড়ে চারটেয় দেখা গেল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা গ্রেফতার করেছে মদনকে। তাই মদনের মতো আমার মক্কেলের পরিনতি হোক তা চাই না। কারণ রাজীবও এই মামলার একজন সাক্ষী।"মামলার পরবর্তী শুনানি রয়েছে শুক্রবার। সোমবার সিবিআই তাঁর বক্তব্য জানাবে।