করোনা আবহে আরও অমানবিক নজির দেখল কলকাতা। সল্টলেকে একটি অতিথিশালা থেকে মাদ্রাসার শিক্ষকদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ। ধর্মীয় কারনে স্থানীয় বাসিন্দাদের আপত্তির কারনে ওই অতিথিশালা থেকে বের করা হয় বলে দাবি  শিক্ষদের। ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ।

আরও পড়ুন-কলকাতায় বজ্র-বিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা, আগামী পাঁচ দিনে ভারী বৃষ্টিতে ভাসতে পারে উত্তরবঙ্গ

জানাগেছে, মালদহ থেকে  দশ জন মাদ্রাসার শিক্ষক পেশাগত কারনে বিকাশভবনে এসেছিলেন। সল্টলেকের ডিএল ব্লকের অতিথিশালায় তাঁরা ঘর বুক করেছিলেন। শিক্ষকদের অভিযোগ, ঘর বুক করার দুঘণ্টার পর সিএল ব্লকের অন্য একটি অতিথিশালার নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাঁদের দীর্ঘক্ষণ বসিয়ে রেখে ঘর দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। অভিযোগ, অতিথিশালার ম্যানেজেরা ধর্মীয় কারন দেখিয়ে এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের আপত্তি রয়েছে বলে শিক্ষকদের চলে যেতে বলেন। সোমবার বৃষ্টির মধ্যে অতিথিশালা থেকে শিক্ষকদের বেরিয়ে আসতে হয়। 

আরও পড়ুন-সাপে কাটা রোগীর সফল ডায়ালিসিস, অসাধ্য সাধন করল শালবনী করোনা হাসপাতাল

ঘটনায় সরব শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চের দাবি, অতিথিশালায় শিক্ষকদের এভাবে বার করে দেওয়ার বিষয়টি মুখ্যমন্ত্রীকে জানানো হয়েছে। ঘটনার তদন্তে অতিথিশালার পাঁচজন কর্মীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। অতিথিশালার সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আরও পড়ুন-দাম্পত্যে অসুখ, পরকীয়ার টানে স্ত্রীকে 'শ্বাসরোধ করে খুন' স্বামীর

যদিও শিক্ষকদের ঘর না দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ডিএল ব্লকের হোটেলের মালিক অমিত ভট্টাচার্য। ''সব ঘরেই লোক রয়েছে। শিক্ষকরা সেখানে আসেননি, ঘর দেওয়া হয়নি এই অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যে''। অতিথিশালার এক কর্মী বলেন, ''১০ টার মধ্যে ঘর ছেড়ে দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল, লকারন অন্য বুক্ং আছে শিক্ষকদের অপমানজনক কিছু বলা হয়নি''।