ভিন রাজ্য় থেকে আসা শ্রমিকদের নিয়ে নয়া পরিকল্পনা করছে রাজ্য় সরকার। এই বিপুল পরিমাণ শ্রমিকদের জীবিকার কথা ভেবে একশো দিনের কাজকেই হাতিয়ার করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। নবান্ন সূত্রে খবর,একশো দিনের কাজে কীভাবে পরিযায়ী  শ্রমিকদের কাজ দেওয়া যায় তা নিয়ে নীল নকশা তৈরি করতে বলা হয়েছে আধিকারিকদের।  

বেলেঘাটা আইডি দেখে অভিভূত, নোট লিখে জানাল কেন্দ্রীয় দল.

রাজ্য়ের  সাম্প্রতিক পরিস্থিতি বলছে, বিন রাজ্য় থেকে লকডাউনের মধ্যেই রাজ্য়ে উপস্থিত হয়েছেন হাজার হাজার  শ্রমিক। লকডাউন শেষ হলেই জীবন  জীবিকার ক্ষেত্রে তাদের সমস্যার সৃষ্টি হবে। তাই প্রথম থেকেই এইসব পরিযায়ী  শ্রমিকদের কাজ দিতে উদ্যোগ নিতে চলেছে রাজ্য় সরকার। নবান্ন সূত্রে খবর, ইতিমধ্য়েই বিষয়টি নিয়ে পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুবর্ত মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা বলেছেন মুখ্য়মন্ত্রী। কোথায় কোথায় এই শ্রমিকদের কাজ দেওয়া যেতে পারে তা পঞ্চায়েত মন্ত্রীকে খতিয়ে দেখতে বলেছেন মুখ্য়মন্ত্রী। 

রমজানে উস্কানি দিচ্ছে অনেকেই, কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর.

শোনা যাচ্ছে, একশো দিনের কাজেক প্রকল্পেই কাজ পেতে পারেন এইসব শ্রমিকরা। যেখানে মৎস্য, সেচ, বনদফতর সহ বিভিন্ন সরকারি বিভাগকে কাজের রূপরেখা তৈরি  করতে বলা হয়েছে।  মূলত পুকুর ও খাল কাটা, নদী বাঁধ মেরামতির পাশাপাশি ১০০দিনের কাঝে নতুন সংস্থান করা যায় কিনা তা দেখতে বলা হয়েছে এই দফতরগুলিকে।  

কেন্দ্রের আর্থিক প্যাকেজ আসলে অশ্বডিম্ব, তোপ মমতার.

ইতিমধ্য়েই পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় সহ দফতরের বিভিন্ন আধিকারিকদের সঙ্গে এ বিষয়ে ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেও পরিযায়ী শ্রমিকদের কাজের সুযোগ করে দিতে একশো দিনের কাজকে ব্যবহার করতে বলেন তিনি। ঠিক হয়েছে, ভিন রাজ্য় থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের একশো দিনের কাজে ঢোকাবে রাজ্য় সরকার। এরই মধ্য়ে নতুন কাজ খুঁজে বের করা হবে। পৃথক ক্ষেত্রে কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে দেওয়া হবে প্রশিক্ষণ। প্রয়োজনে শ্রমিকদের ব্যাঙ্ক ঋণ দেবে রাজ্য় সরকার।