মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের নির্দেশকে হাতিয়ার করে মহানগরের বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলোর একাংশ বিকল্প শিক্ষাবর্ষের পথে হাঁটতে চলেছে। মে-জুনের পরিবর্তে এখন এই লকডাউনের সময়ে, এপ্রিলেই তারা গ্রীষ্মের ছুটি দিচ্ছে। এই সিদ্ধান্ত নিয়ে অবশ্য রীতিমত বিতর্কও তৈরি হয়েছে।

আরও পড়ুন, ফের করোনা আক্রান্তের শেষকৃত্যে তুলকালাম, ধাপার শ্মাশানে বিক্ষোভ স্থানীয়দের

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশজুড়ে এখন লকডাউন। বুধবারই সিবিএসই এবং আইসিএসই স্কুলগুলোর বেশির ভাগ জায়গায় নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হওয়ার কথা ছিল। যার দরুণ ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে পর্যাপ্ত শিক্ষা দিবস না পাওয়ার আশঙ্কায় কেন্দ্রীয় বোর্ডের অনুমোদিত কয়েক হাজার স্কুল।  উল্লেখ্য়, মানবসম্পদ মন্ত্রকের ২৫ মার্চের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের প্রতিরোধে দেশজুড়ে লকডাউন চলছে। এই অবস্থায় স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে সংশোধিত ক্যালেন্ডার তৈরি হোক। এই বক্তব্য়কে প্রাধান্য় দিয়েই করোনা মোকাবিলায় একাধিক বেসরকারি স্কুল ইতিমধ্যেই গ্রীষ্মের ছুটি এগিয়ে আনার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।

আরও পড়ুন, লকডাউনে বন্দিদশায় কলকাতা, ভরসা জোগাতে আমরা করব জয় গাইছে পুলিশ


সল্টলেক শিক্ষা নিকেতনের অ্যাকাডেমিক ডিরেক্টর রেখা বৈশ্যও  বলেন, 'আমাদের স্কুল ২০ মার্চ থেকে বন্ধ। যদি করোনার জেরে লকডাউনের মেয়াদ বেড়ে ৩০ এপ্রিল হয়, সে ক্ষেত্রে আমরাও  এই সময়টা গরমের ছুটি হিসাবে গণ্য করব। পড়ুয়াদের পড়াশোনার কথা ভেবেই  ২ মে থেকে পুরোপুরি স্কুল চালু হতে পারে।' অভিনব ভারতী হাইস্কুলের সচিব নন্দিনী বনসল মঙ্গলবার অভিভাবকদের উদ্দেশে জারি করা এক নির্দেশিকায় জানিয়েছেন, করোনার জেরে চলতি শিক্ষাবর্ষে পড়ুয়াদের কথা ভেবে গ্রীষ্মের ছুটি ৭ মে থেকে ৩১ মে-এর পরিবর্তে ১ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত করা হচ্ছে। গরমের ছুটির পর স্কুল খুলবে ২ মে।   শহরের আরও বেশ কয়েকটি স্কুল একই পরিকল্পনা করেছে। তবে আগে তারা দেখে নিতে চায়, রাজ্য ও দেশে লকডাউন কতদিন থাকে। তারপরেই তারা এই বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করবে।

ফের তথ্য গোপন করোনা আক্রান্ত প্রৌঢ়ের ভাইয়ের, আইসোলেশনে ভর্তি বরানগরের বাসিন্দা

জ্বর নিয়েই ট্রেন করে একটানা অফিস, ভয়ে কাঁটা রাজ্য়ের করোনা আক্রান্তর সহকর্মীরা
 

রাজ্যে আরও এক করোনা আক্রান্তের হদিশ,সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ২২