শুভজিৎ পুততুণ্ড, বারাসত-কাজ আগেই কেড়ে নিয়েছিল করোনাভাইরাস। লকডাউনের সময়কালে প্রাণ বাঁচাতে নিজের ঘরে ফিরেছিলেন। সরকারের প্রতিশ্রুতি ছিল নিজেদের রাজ্যেই কাজ মিলবে পরিযায়ী শ্রমিকদের। সেজন্য বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পও ঘোষণা করা হয়েছে। সেগুলির দ্রুত বাস্তবায়নেরও চেষ্টা করেছে সরকার। কিন্তু সুফল পাননি রাজ্য়ের পরিযায়ী শ্রমিকরা। অগত্য়া কাজের খোঁজে নিজেদের রাজ্যে ফিরে যাচ্ছেন তাঁরা। বললেন, ''নিজেদের রাজ্যে কাজ নেই, পরিবারের মুখে অন্য তুলে দেব কীভাবে। তাই উপার্জনের চেষ্টায় অন্য রাজ্যে পাড়ি দিচ্ছি''। 

আরও পড়ুন-ভাইঝিকে উত্যক্ত করার প্রতিবাদে খুন, দম্পতির গুলিবিদ্ধ দেহ উদ্ধার ঘিরে ঘণীভূত রহস্য

ভিনরাজ্যে কাজে যেতে ট্রেন চলাচল আপাতত বন্ধ। তাই এখন ভরসা একমাত্র বিমান। বাঁচিয়ে রাখা শেষ সম্বল টুকু দিয়ে বিমানের টিকিট কেটে নিজেদের রাজ্য ছেডে় ভিন রাজ্য পাড়ি দিচ্ছেন পরিযায়ী শ্রমিকরা। পরিসংখ্যান অনুযায়ী লকডাউনের সময় বাংলায় ফিরেছিলেন প্রায় ১৭ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিক। আচমকা লকডাউনের জেরে কেউ গেঁটের কড়ি বেশি খরচা করে। আবার কেউ দীর্ঘপথ পায়ে হেঁটে গন্তব্যে পৌঁছেছিলেন পরিযায়ীরা। তাঁদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রকল্প ঘোষণা করেছিল সরকার। বাংলাতেই তাঁদের জন্য কাজ মিলবে বলে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল কিন্তু লকডাউন শেষে আনলক পর্ব শুরু হলেও এখনও কাজ পাচ্ছেন না তাঁরা। পরিবারের আর্থিক সমস্যা মেটাতে অগত্যা ভিন রাজ্যে পাড়ি দিয়েছেন তাঁরা।

আরও পড়ুন-গঙ্গাসাগর বাজার এলাকায় বিধ্বংসী আগুন ঘিরে রহস্য, ভস্মীভূত ১০টি দোকান

একজন পরিযায়ী শ্রমিক বলেন, গুজরাতের একটি কারখানায় কাজ করতেন তাঁরা। আনলক পর্ব শুরু হতেই সেভ কারখানা থেকে কাজের জন্য তাঁদের ডেকেছেন মালিকপক্ষ। তাই বাংলার সরকারের দিকে তাকিয়ে না থেকে সেখানেই কাজের খোঁজে পাড়ি দিয়েছেন তাঁরা। দীর্ঘদিন কাজ না থাকায় হাতে টাকাও নেই তাঁদের। এই অবস্থায় শেষ সম্বল টুকে বেচে বিমানের টিকিট কিনেছেন শ্রমিকরা। ভিন রাজ্যে করোনার ঝুঁকি থাকলেও যেতে হচ্ছে তাঁদের।

আরও পড়ুন-'মৃত ঘোষণার পরেও বেঁচে ছিল রোগী', চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে হাসপাতালে ভাঙচুর

এদিন ভিন রাজ্যে কাজে যোগ দিতে পরিযায়ী শ্রমিকদের ভিড় দেখা গেল কলকাতা বিমানবন্দরে। মাস্ক, স্যানিটাইজার সহ করোনা সুরক্ষা বিধি মেনে পাড়ি দিয়েছেন ভিন রাজ্যে। একই ছবি দেখা গেল অন্ডাল, বাগডোগরা বিমানবন্দরেও। নিজেদের রাজ্যে কাজের জন্য তিন মাস আগে সরকারি খাতায় নাম নথিভুক্ত করেছিলেন। কিন্তু কোনও কাজ পাননি। অগত্য়া ভিন রাজ্যে কাজের খোঁজে রওনা দিচ্ছেন পরিযায়ী শ্রমিকরা।