কলকাতায় পা রাখবেন বিকেলে। কিন্তু তার আগে  সকালে টুইট করে জানান দিলেন তিনি আসছেন। টুইটে প্রধানমন্ত্রী লিখেছেন, বাংলায় দুদিনের সফরের জন্য মুখিয়ে রয়েছেন তিনি।  পাশাপাশি বেলুড়ে রামকৃষ্ণ মিশনে যাওয়া নিয়েও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

মোদীকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দরে ফিরহাদ, মমতার মাস্টারস্ট্রোক দেখছে রাজনৈতিক মহল.
 
দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথম কলকাতায় আসছেন নরেন্দ্র মোদী। পোর্ট ট্রাস্টের একটি অনুষ্ঠানে আসছেন তিনি। সিএএ বিরোধিতার মধ্য়ে রাজ্য়ে মোদী আসায় কঠোর নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হচ্ছে মহানগরকে। শনিবার শহরে এলেও রবিবার কলকাতা বন্দরের দেড়শো বছরের পূর্তি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন তিনি। মূলত, এই অনুষ্ঠানের জন্যই কলকাতায় আসছেন নমো। তবে একই সঙ্গে বেশকিছু কর্মসূচি রয়েছে তাঁর।

রাস্তায় দাঁড়িয়ে সিএএ-র প্রতিবাদীরা, রুট বদলে জলপথে বেলুড় যাবেন মোদী

শনিবার পশ্চিমবঙ্গে আসার আগেই টুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। টুইটে তিনি লিখেছেন, আজ ও আগামীকাল পশ্চিমবঙ্গে থাকতে পেরে উচ্ছ্বসিত। রামকৃষ্ণ মিশনে সময় কাটাতে পারব ভেবে আমি আনন্দিত। পাশাপাশি বেলুড় নিয়ে আক্ষেপও ঝড়ে পড়েছে মোদীর গলায়।  প্রয়াত বেলুড় মঠের প্রাক্তন প্রধান স্বামী আত্মস্থানন্দকে নিয়েও টুইটে লেখেন প্রধানমন্ত্রী। টুইটে তিনি লেখেন, রামকৃষ্ণ মিশনে যাব তাও একটা শূন্যতাও থাকবে। যিনি আমাকে 'জন সেবাই,প্রভু সেবা'-র মতো  মহৎ নীতিটি শিখিয়েছিলেন, শ্রদ্ধেয় স্বামী আত্মাস্থানন্দজি আজ আর সেখানে নেই।'

তবে শনিবার শহরে এলেও রবিবার কলকাতা বন্দরের দেড়শো বছরের পূর্তি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন তিনি। মূলত, এই অনুষ্ঠানের জন্যই কলকাতায় আসছেন নমো। তবে একই সঙ্গে বেশকিছু কর্মসূচি রয়েছে তাঁর। জানা গেছে, শনিবার বিকেল ৫টায় কলকাতা বিমানবন্দরে নামবেন নমো। হরে এসে প্রধানমন্ত্রী প্রথমে যাবেন কেন্দ্রের সংস্কৃতি মন্ত্রকের একটি পেন্টিং মিউজিয়ামের উদ্বোধনে। এই মিউজিয়াম উদ্বোধন হবে ওল্ড কারেন্সি বিল্ডিংয়ে। সন্ধে ৫ টা ৪৫ মিনিটে  এই মিউজিয়ামের উদ্বোধন হওয়ার কথা।

আজ ইডেনে বল হাতে অনুষ্কা, ব্য়াট ধরবেন কি বিরাট

সেখান থেকে তিনি যাবেন মিলেনিয়াম পার্কে। বৃহস্পতিবারই যে কারণে গেরুয়া রঙে রেঙে উঠেছে মিলেনিয়াম পার্ক। এরপর ৭ টায় হাওড়া ব্রিজে লাইট অ্যান্ড সাউন্ড ব্যবস্থার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে ৭টা ৪৫-এ বেলুড় মঠে যাওয়ার কথা রয়েছে তাঁর। পরবর্তী পরিকল্পনা অনুযায়ী রাত সাড়ে ৮টায় ঢুকে যাবেন রাজভবনে। সেখানেই রাতে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী। রবিবার সকাল ১১ টা নাগাদ নেতাজি ইন্ডোরে বন্দরের দেড়শো বছর পূর্তির অনুষ্ঠানে যাবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকেই  ১২ টা ৪৫ শে দিল্লি উড়ে যাওয়ার কথা রয়েছে তাঁর। সূত্রের খবর, রাজ্য বিজেপি মোদীকে সংবর্ধনা দেওয়ার কথা জানিয়েছে। কিন্তু এখনও সেই কর্মসূচির কোনও নিশ্চয়তা পাওয়া যায়নি।

এদিকে মোদীকে কালো পতাকা দেখানোর কথা ঘোষণা করেছে সিপিএম-সহ বাম দলগুলি।  সিপিএম-এর পলিটব্যুরো সদস্য  মহম্মদ সেলিম বলেছেন, মোদীকে কালো পতাকা দেখিয়ে গো ব্যাক স্লোগান তুলবেন তারা। মমতার পুলিশ বাধা দিলে মমতাকেও গো ব্য়াক স্লোগান দেবে বাম কর্মী সমর্থকরা। বিমানবন্দরে মোদী নামার পর থেকেই শুরু হবে বিরোধিতার পালা।