মর্গে মৃতদেহ জমে থাকায় সমস্যায় পড়ছে বাঙ্গুর হাসপাতাল। মর্গ খালি করতে মৃতের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য এবং জরুরি ভিত্তিতে ওই মৃতদেহগুলির শেষকৃত্য করার জন্য পুলি‌শকে  অনুরোধ জানালেন এমআর বাঙ্গুর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।  

আরও পড়ুন, মল্লিক বাজারের নিউরো হাসপাতালে করোনা পজিটিভ ২ শীর্ষ কর্তা, সংক্রমণের আশঙ্কায় চূড়ান্ত সতর্কতা

সূত্রের খবর, গত ২০ এপ্রিল দক্ষিণ কলকাতার এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালের সুপার যাদবপুর থানায় একটি চিঠি পাঠান। চিঠির প্রতিলিপি পাঠানো হয় দক্ষিণ ২৪ পরগনার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক, হাসপাতালের সহকারী সুপার, হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির আধিকারিক সহ আরও কয়েক জনকে। ওই চিঠিতে ১৫ জন মৃতের একটি তালিকা দেওয়া হয়েছে। সেখানে প্রত্যেকের নাম, ঠিকানা, মৃত্যুর বিবরণ, তারিখ ও সময় উল্লেখ করা রয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে ওই মৃতদেহগুলির শেষকৃত্য করার জন্য পুলিশের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কারণ হিসেবে তাঁরা জানিয়েছেন, মর্গে মৃতদেহ জমে থাকার ফলে সেখানে নতুন করে দেহ রাখতে প্রবল সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। তাই ১৫ জনের পরিবারের সঙ্গে দ্রুত পুলিশকে যোগাযোগ করার অনুরোধ জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এদিকে জানা গিয়েছে, ওই চিঠিতে ১৫ জনের মধ্যে ৬ জনের নামের পাশে লেখা 'কোভিড পজিটিভ'। 

আরও পড়ুন, এবার বেসরকারিতেও করোনা চিকিৎসায় মিলবে বিনামূল্য়ের পরিষেবা, হাসপাতালের খরচও দেবে রাজ্য সরকার

এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালের এক আধিকারিকের দাবি, যে ৬ জনের নামের পাশে 'কোভিড পজিটিভ' লেখা রয়েছে তাঁরা অন্য রোগে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। পরে মারা যান। তাঁদের মৃত্যুর পরে তাঁদের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট আসে। জানা যায় যে, তাঁরা করোনা পজিটিভ। ওই আধিকারিক আরও বলেন, 'একটি পরিবারের কোনও সদস্যের মৃত্যুর কারণ কী, তা জানার অধিকার রয়েছে তাঁর বাড়ির লোকের। তাই তাঁদের জানিয়ে পুরসভা মারফত দেহ সৎকারের ব্যবস্থা করার জন্য পুলিশকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।'

 

 করোনায় রাজ্যে মৃতের সংখ্য়া বেড়ে ১৮, গত চব্বিশ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত আরও ৫১
 

করোনা সচেতনতায় মৌলালি ও বেহালায় মুখ্যমন্ত্রী, লকডাউন সফলে এলাকাবাসীকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি

  মেডিক্যালের ছোঁওয়া মানিকতলায়, করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসায় দমকল কেন্দ্রের ৩২ কর্মী কোয়রান্টিনে