শহর কলকাতায়, আজ দুপুরে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বিমান বন্দরে  মোদীকে স্বাগত জানাবেন পুরমন্ত্রী।  সড়ক পথের পরিবর্তে মিলেনিয়াম পার্ক থেকে গঙ্গা দিয়ে তাঁকে বেলুড় মঠে নিয়ে যাওয়া হবে। নিরাপত্তার কারণেই বদল করা হয়েছে রুট। নরেন্দ্র মোদীই প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসাবে, পশ্চিমবঙ্গে  এসে জলপথে সফর করবেন। রবিবার, বন্দরের অনুষ্ঠানে, মোদীর সঙ্গে একই মঞ্চে থাকবেন, মুখ্যমন্ত্রী। 

 

 

আরও পড়ুন, মোদীকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দরে ফিরহাদ, মমতার মাস্টারস্ট্রোক দেখছে রাজনৈতিক মহল

সূত্রে জানা গিয়েছে,  শনিবার  দুপুর ৩টে ৩০ মিনিট নাগাদ প্রধানমন্ত্রীর বিমান নামবে কলকাতায়।  প্রথমে দমদম এয়ারপোর্টে নামবেন মোদী। তারপর  এমআই ১৭ কপ্টারে করে রেস কোর্সে নামবে নরেন্দ্র মোদী। এরপর ৩টে ৫৫ নাগাদ মোদী যাবেন রাজভবনে। সন্ধ্য়ে ৬টা নাগাদ  হেলিকপ্টারে বদলে তাঁর সড়কপথেই বিবাদী বাগে এসে পৌঁছনোর কথা। বিবাদী বাগে ওল্ড কারেন্সি বিল্ডিংয়ে সাড়ে ৫টা থেকে ৬টা ৫০ পর্যন্ত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী। পুরাতত্ত্ব বিভাগের একটি প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন তিনি। সন্ধে ৭টা থেকে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত মিলেনিয়াম পার্ক থাকবেন নরেন্দ্র মোদী। হাওড়া সেতুর ওপর তৈরি একটি আলোকধ্বনি  উদ্বোধন করবেন তিনি। মিলেনিয়াম পার্ক থেকে নদীপথে জেটি ধরে বেলুড় মঠে পৌঁছবেন প্রধানমন্ত্রী। বেলুড় মঠ থেকে জলপথেই কলকাতায় ফিরে আসবেন। শনিবার রাতে  তিনি  রাজভবনে থাকবেন।

আরও পড়ুন, আহারে জুটবে বাহারি মাছ, কলকাতার নলবনে মৎস্য উৎসব

  রবিবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষের ১৫০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠান সূচনা করবেন প্রধানমন্ত্রী। দুপুর ১২টা ৪৫ নাগাদ দমদম বিমানবন্দর থেকে বায়ুসেনার বিমানে দিল্লি রওনা হবেন তিনি। তবে নেতাজি ইন্ডোর থেকে প্রধানমন্ত্রী সড়কপথ অথবা আকাশপথ, কোন পথে তিনি বিমানবন্দরে যাবেন সেই বিষয়ে  এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। বন্দরের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে গেছে জাহাজ মন্ত্রকের আমন্ত্রণ। এছাড়াও সঙ্কীর্ণ, ঘিঞ্জি জিটি রোড ধরে প্রধানমন্ত্রীকে বেলুড়ে নিয়ে যাওয়া সমস্যা বলেই মনে করছে এসপিজি। শুক্রবার সকাল থেকেই তাদের দখলে চলে যায় মিলেনিয়াম পার্ক। নদীপথে প্রধানমন্ত্রীর সফরের নিরাপত্তার জন্য তৈরি থাকছে নৌ-সেনার বিশেষ জলযান।