লকডাউনে ৮ বন্ধুর মন ভরে মদ্য়পান। তবে খলনায়ক হল করোনা। এই ৮ জনের একজনের রিপোর্ট করোনা পজেটিভ। এরপরেই খবর জানতে পেরে ঘাম ছুটল বাকি ৭ বন্ধুর। শেষমেষ প্রাণের ভয়ে বাকি বন্ধুরা পুলিশের দ্বারস্থ্য় হয়। জানা গিয়েছে,  ওই করোনা আক্রান্ত আদতে লিলুয়া রেল হাসপাতালের একজন স্বাস্থ্য়কর্মী। ইতিমধ্য়েই তাঁকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাকি বন্ধুদের পরিবার সহ প্রায় ৪০ জনেকেই পাঠানো হয়েছে কোয়ারেন্টিনে।

আরও পড়ুন, করোনা আক্রান্ত এবার জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডের এক পুলিশকর্মী, বাঙ্গুর হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন

লকডাউনের জেরে এমনিতে রাজ্য় জুড়ে মদের দোকানেও নানা শর্তাবলী জারি করা হয়েছে। আর তারই মধ্য়ে লিলুয়া রেল হাসপাতালের এক স্বাস্থ্যকর্মী,সোমবার রাতে  এলাকার ৭ জনকে নিয়ে মদ্যপানের আসর বসিয়েছিলেন। রাত পেরোতে না পেরোতেই জ্বর ও কাশি শুরু হয় তাঁর। করোনা উপসর্গ সহ স্বাস্থ্যকর্মী মঙ্গলবার লিলুয়া রেল হাসপাতালেই ভর্তি হন। নমুনা পরীক্ষায় ওই স্বাস্থ্যকর্মীর রিপোর্ট করোনা পজিটিভ আসে। আক্রান্তের সঙ্গে যে ৭ জন মদ্য়পান করেছিল তাদেরকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। প্রত্যেকের বাড়ির প্রায় ৪০ জনকে পাঠানো হয়েছে হোম কোয়ারেন্টাইনে। শুক্রবার তাঁদের টেস্ট করতে আসেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। 

আরও পড়ুন, টিকিয়াপাড়া কাণ্ডে কড়া পদক্ষেপ নিল পুলিশ, গ্রেফতার প্রধান অভিযুক্ত শাকিব সহ আরও ১৩

অপরদিকে, ওই এলাকাটি প্রশাসনের তরফে বৃহস্পতিবার রাতে সিল করে দেওয়া হয়েছে। এলাকার সকলেই এই ঘটনার পর এখন রীতিমত আতঙ্কিত। কেবল উপযুক্ত প্রমাণ দিয়ে জরুরি কাজের জন্য স্থানীয়রা বাইরে যেতে পারবেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।  
 

 

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর

রাজ্য়ে একাধিক করোনা রিপোর্ট 'ফলস' নেগেটিভ, কী বলছেন চিকিৎসকরা

রিপোর্ট 'নেগেটিভ' -পাঠানো হল বাড়ি, ভূল থাকায় ফের ডাক, বাঙ্গুর হাসপাতালে মৃত্যু করোনা আক্রান্তের