বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানোর অভিযোগে ধৃত বিজেপি সাংসদ রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ের ছেলে আকাশ মুখোপাধ্যায়ের এক দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিল আদালত। আকাশের আইনজীবী জামিনের আবেদন করলেও তার বিরোধিতা করেন সরকারি আইনজীবী। এ দিকে এই ঘটনায় কার্যত রূপা পুত্র  আকাশ মুখোপাধ্যায়ের পাশেই দাঁড়িয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। 

বৃহস্পতিবার রাতে গল্ফ গার্ডেনে রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ের বাড়ির কাছেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি পাঁচিল ভেঙে ঢুকে যায় আকাশের গাড়ি। চালকের আসনে ছিলেন আকাশই। অভিযোগ ঘণ্টায় প্রায় একশো কিলোমিটারেরও বেশি বেগে গাড়ি চালাচ্ছিলেন আকাশ। ঘটনায় তাঁরও মাথায় আঘাত লাগে। এর পরেই আকাশকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ দিন তাঁকে আলিপুর আদালতে তোলা হয়। 

আরও পড়ুুন- মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি দুর্ঘটনা! পাঁচিল ভেঙে পুলিশি হেফাজতে সাংসদ রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ের ছেলে

সরকারি পক্ষের আইনজীবী আকাশের জামিনের বিরোধিতা  করে অভিযোগ করেন, বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানোর ফলে সরকারি সম্পত্তির ক্ষতি হয়েছে। তিনি দাবি করেন, স্বাধীনতা দিবসের রাতে রাস্তায় পুলিশি প্রহরা ছিল, গার্ডরেল দিয়ে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছিল। কিন্তু সেসবের তোয়াক্কা না করেই তীব্র গতিতে চালাচ্ছিলেন আকাশ। কী উদ্দেশ্যে তিনি এমন করলেন, তা বিশদে জানতেই আকাশকে জেরা করা প্রয়োজন বলে আদালতে যুক্তি দেন সরকারি আইনজীবী। 

যদিও, এই ঘটনায় বিজেপি সাংসদের ছেলের পাশেই দাঁড়িয়েছেন দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি দাবি করেন, ঘটনার পর রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে রূপাদেবীই নিজে পুলিশকে খবর দেন বলে জানা দিলীপবাবু। তাঁর অভিযোগ, যেখানে দুর্ঘটনা ঘটে সেখানকার তৃণমূল নেতারাই বিষয়টি নিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছেন। আকাশ বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালাচ্ছিলেন কি না, তা পুলিশি তদন্তেই জানা যাবে বলেও মত দেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। ছেলের দুর্ঘটনার খবর জানিয়ে অবশ্য রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ও একটি টুইট করেন। সেখানে তিনিও লেখেন, আইন মেনেই যা ব্যবস্থা নেওয়ার নিক পুলিশ। এর মধ্যে রাজনীতি না টানতেও অনুরোধ করেন বিজেপি সাংসদ। এ দিনই আকাশের দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়িটির ফরেন্সিক পরীক্ষা হয়।