শুভজিৎ পুততুণ্ড, বারাসত-বাড়ি থেকে পুজো দিতে বেরিয়ে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হল একছাত্র। ঘটনার একদিন পর মুর্শিদাবাদ থেকে উদ্ধার হয় ছাত্রের স্কুটার ও হেলমেট। সম্ভাব্য জায়গায় খোঁজ নেওয়ার পরেও হদিশ নেই ছেলের। থানায় নিখোঁজের অভিযোগ দায়ের করেছে পরিবার। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে বেলঘরিয়ার একটি আবাসনের মিত্তল পরিবারের। পুলিশ সূত্রে খবর, বুধবার সকালে আলমবাজারে শ্য়াম মন্দিরে পুজো দিতে বেরিয়ে ছিল বছর কুড়ির ওই ছাত্র রক্সিত মিত্তল। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতিও নিচ্ছিল সে। বাড়ি থেকে বেরনোর পর আর খোঁজ মেলেনি রক্তিতের। সম্ভাব্য বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ নেন তাঁর বাবা অশোক মিত্তল। কিন্তু কোনও জায়গায় ছেলের হদিশ না পেয়ে বেলঘরিয়া থানায় নিখোঁজের অভিযোগ দায়ের করে মিত্তল পরিবার।

আরও পড়ুন-টানা ১০ বছর জঙ্গলমহলে, এবার বাড়ি ফেরার সময়, নিজেদের রাজ্যে ফিরছে নাগা বাহিনী

এরপরই রহস্য আরও দানা বাঁধে। মুর্শিদাবাদের বেলডাঙা থানা থেকে ফোন করে বেলঘরিয়ায় জানানো হয়, স্কুটার ও হেলমেট উদ্ধার হয়েছে ওই রক্সিতের। এরপরই উদ্বেগ প্রকাশ করেন তাঁর পরিবার। তাহলে কী কোনও আত্মীয়ের সঙ্গে দেখা করতে মুর্শিদাবাদে গিয়েছিল রক্সিত মিত্তল। যদিও সেরকম কোনও সম্ভাবনা খুঁজে পাচ্ছে না বেলঘরিয়ার মিত্তর পরিবার। রক্সিতের মা কবিতা মিত্তল জানান, পড়াশুনায় খুব ভাল তাঁর ছেলে। ডাক্তারি পড়বে বলে পরিবারকে জানিয়েছিল সে। অন্য কেউ তাঁকে ফুসলিয়ে নিয়ে গিয়েছে বলে অনুমান করছেন রক্সিতের মা।

আরও পড়ুন-ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে তুলকালাম কাণ্ড, উত্তপ্ত বর্ধমানের চৈত্রপর

নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে রক্সিতের মোবাইলে বারবার ফোন করে তাঁর পরিবার। কিন্তু ফোন সুইচট অফ থাকায় কোনও ভাবেই রক্সিতের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছে না পরিবার। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বেলঘরিয়া থানার পুলিশ।