সলমান তাঁকে সেলুলয়েডে ট্রাক্টরের ধোয়া মুখে ঢুকিয়ে মায়ের মৃত্যুর শাস্তি দেয়। দর্শকরা খুশি হয়ে পপকর্ণ খায়, যে উচিত শিক্ষা হয়েচে। অথচ   'দাবাং' এর ,সেই খলনায়ক সোনু সুদই আজ বাস্তবের নায়ক। আটকে পড়া পরিযায়ী হোক কিংবা চাকরি হারানো অসহায় কেউ, একবার তাঁকে স্মরণ করলেই হল। সাহায্য নিয়ে হাজির।  যদিও নিন্দুকেরা বলেন সেই কাজ আবার নিজেই ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেই নিজের ঢাক পিটিয়েছেন। তবে এসব গায়ে মাখে না কলকাতা। সোনু সুদকে প্রাণের দেবতায় স্থানে রেখে তাঁর মূর্তি বানিয়েছেন পুজোর মাঝেই, কেষ্ট পুর প্রফুল্লকাননের থিম মেকার স্বপন চক্রবর্তী।

আরও পড়ুন, ভাই-এর বিয়ের সেলিবেশ্রন চৌপাট, কঙ্গনা-রঙ্গোলিকে বান্দ্রা থানায় তলব

 

 

এবার তিনি শীর্ষে মানবতায়

সোনু সুদ যোধা আকবর থেকে হালের 'দাবাং'  বলিউডের খতরনাক খলনায়ক। এসি মাল্টিপেক্সের সিনেমা হলে বসে, তাঁর অভিনয় দেখে অনেকেই রীতিমত ক্ষেপে যান। যেন সামনে পেলে কী না জানি করবেন। সুতরায় অভিনয়ে তিনি দক্ষতা অর্জন তো করেইছেন। এবার তিনি শীর্ষে মানবতায়। এখনও অবধি তিনি অসংখ্য পরিযায়ী মানুষকে খাবার খাওয়ানো সহ বাড়ি ফিরিয়েছেন। নিয়েছেন অনেকের পড়াশোনার দায়িত্ব। পাইয়ে দিয়েছেন চাকরীও। সেই সোনু সুদকে সম্মান জানিয়েই তাঁর মূর্তি বানিয়েছেন পুজোর মাঝেই, কেষ্ট পুর প্রফুল্লকাননের থিম মেকার স্বপন চক্রবর্তী।

আরও পড়ুন, মহাষষ্ঠীতে বারাসাতে মোদি, রাত পেরোলেই করবেন পুজোর উদ্ধোধন

 

 

সোনুর ফোন পেয়ে আপ্লুত কর্মকর্তারা

অপরদিকে, সেই খবর পৌছে গিয়েছে খোদ সোনু সুদের কাছেও। টেলিফোনে কথা বলেছেন দুই শিল্পী। এবং টুইটে সোনু সুদ জানিয়েছেন, 'এটা আমার সারা জীবনের সেরা পুরষ্কার'। তবে সোনুর ফোন পেয়ে আপ্লুত কর্মকর্তারা। রঞ্জিত চক্রবর্তী জানিয়েছেন, শুটিং শেষ হলেই সোনু সুদ আসতে পারেন কলকাতায়। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। কিন্তু আমারা আশাবাদী।'