প্রয়াত স্ত্রীর শেয়ার অর্পিতাকে, একসঙ্গে ঘুরতে যান থাইল্যান্ডও! ইডির কাছে পার্থের বিরুদ্ধে একাধিক তথ্য

| Sep 27 2022, 02:12 PM IST

প্রয়াত স্ত্রীর শেয়ার অর্পিতাকে, একসঙ্গে ঘুরতে যান থাইল্যান্ডও! ইডির কাছে পার্থের বিরুদ্ধে একাধিক তথ্য
প্রয়াত স্ত্রীর শেয়ার অর্পিতাকে, একসঙ্গে ঘুরতে যান থাইল্যান্ডও! ইডির কাছে পার্থের বিরুদ্ধে একাধিক তথ্য
Share this Article
  • FB
  • TW
  • Linkdin
  • Email

সংক্ষিপ্ত

চার্জশিটে আরও দাবি করা হয়েছে, 'বান্ধবী' অর্পিতা-র কেনাকাটার বিল মেটাতেন পার্থ। তাইল্যান্ডের ফুকেতে দু'জনে একসঙ্গে ঘুরতেও গিয়েছিলেন বলে দাবি তদন্তকারীদের। 

প্রয়াত স্ত্রীর নামে থাকা একটি সংস্থার শেয়ার নাকি পার্থ চট্টোপাধ্যায় বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের নামে ট্রান্সফার করে দেন। এরকমই চাঞ্চল্যকর দাবি ইডির আধিকারিকদের। এছাড়াও আরও তথ্য তাঁরা পেয়েছেন বলে জানাচ্ছেন তদন্তকারীরা। 

স্কুল শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে আদালতে চার্জশিট জমা করেছেন তদন্তকারীরা। তাতে পার্থ এবং অর্পিতার সম্পর্কের কথা উঠে এসেছে। আর তাতেই পার্থর হাত ধরেই অর্পিতার বোনের চাকরি হয় বলে দাবি করা হয়েছে। আদালতে জমা দেওয়া ওই চার্জশিটে ইডি-র দাবি, সাধারণ চাকরিপ্রার্থীদের বঞ্চিত করে অর্পিতার বোনের চাকরির ব্যবস্থা করে দেন পার্থ। উচ্চশিক্ষা দফতরে গ্রুপ ডি বিভাগে চাকরি করেন তিনি।

Subscribe to get breaking news alerts

ইডি চার্জশিটে আরও দাবি করেছে যে, পিংলায় পার্থর প্রয়াত স্ত্রীর নামে যে বিশাল স্কুল রয়েছে, তার চেয়ারম্যান তাঁদের জামাই কল্যাণময় ভট্টাচার্য। ওই স্কুল তৈরির টাকার উৎস ঘিরেও শুরু হয়েছে তদন্ত। আদালতে জমা দেওয়া চার্জশিটে ইডি জানিয়েছে, ১৫ কোটি টাকা খরচ করে বানানো হয়েছিল ওই স্কুল। কিন্তু খাতায় কলমে ৪ কোটি ৩৮ লক্ষ টাকা খরচ দেখানো হয়। রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী থাকাকালীন চাকরি বিক্রিতে সরাসরি যুক্ত ছিলেন পার্থ। 
চার্জশিটে আরও দাবি করা হয়েছে, 'বান্ধবী' অর্পিতা-র কেনাকাটার বিল মেটাতেন পার্থ। তাইল্যান্ডের ফুকেতে দু'জনে একসঙ্গে ঘুরতেও গিয়েছিলেন বলে দাবি তদন্তকারীদের। তাঁরা জানিয়েছেন, নিয়োগ দুর্নীতি একটি বড় আকারের গণ-দুর্নীতি। চাকরির জন্য আবেদন করতেন সাংসদ, বিধায়ক, কাউন্সিলররা। অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার ডায়েরিতে সেই সংক্রান্ত তথ্য রয়েছে। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, চারটি সংস্থাকে সামনে রেখে চাকরি বিক্রির কালো টাকা সাদা করার চেষ্টা হয়। 

এই প্রেক্ষিতে জানা গিয়েছে, স্কুল শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতিকাণ্ডে পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর বান্ধবী  অর্পিতা মুখোপাধ্য়ায়ের বাড়ি থেকে এমন অনেক নথি উদ্ধার হয়েছে যাতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের জামাই কল্যাণময় ভট্টাচার্যের নাম রয়েছে। আর সেই কারণেই তদন্তকারীদের অনুমান কল্যাণময় ভট্টাচার্যের কাছ থেকে অনেক তথ্য পাওয়া যেতে পারে।

স্কুল শিক্ষক দুর্নীতিকান্ডে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করেছিলে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। তাঁর ঘনিষ্ট অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছিল রাশি রাশি টাকা। যা পার্থ চট্টোপাধ্যায় তাঁর রেখে রেখেদিয়েছিলেন বলেও দাবি করেছেন অর্পিতা। যাইহোক, ইডি হেফাজতে নিলেও পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে কয়েক দিনের জন্য নিজেদের হেফাজতে নিয়েছিল সিআইডি। মুখোমুখি বসিয়ে জেরাও করেছিল স্কুল শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতিকাণ্ডে ধৃত শান্তিপ্রসাদ সিনহা, সুবিরেশ ভট্টাচার্য ও কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে। এরপর আবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। তদন্তকারীদের দাবি জেল থেকে মুক্ত হল প্রমাণ লোপাট করতে পারেন তিনি। কারণ প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীকে প্রভাবশালী হিসেবেই দেখছে  তদন্তকারীরা।

পাইলটের উড়ান আটকে নিজের পথেই কাঁটা বিছালেন অশোক গেহলট, কংগ্রেস সভাপতির দৌড় থেকে বাদ যেতে পারেন

চাল-ডালের সঙ্গে এবার বিক্রি হবে মদ? কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি রেশন ডিলারদের

তিন দিনের সফরে নাগাল্যান্ডে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, পরিদর্শন করলেন এশিয়ার বিখ্য়াত সুমি ব্যাপটিস্ট চার্চ