বিশ্বনাথ দাস, হাওড়া-শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক অবস্থান কী? তা নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে এখনও জল্পনা অব্যাহত। মঙ্গলবার অভিষেকের সঙ্গে শুভেন্দুর ম্যারাথন বৈঠকে সমাধান সূত্রে বেরিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তিনি যে তৃণমূলেই থাকছেন। এটাই শুভেন্দুর রাজনৈতিক অবস্থান বলে দাবি করেছেন তৃণমূলেল বর্ষীয়ান সাংসদ সৌগত রায়। তারপরেও, শুভেন্দু যে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসবেন। তা নিয়ে এখনও আশাবাদী বিজেপি নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন-'দল ছাড়ছেন না শুভেন্দু', পিকে-অভিষেকের সঙ্গে বৈঠকে গলেছে বরফ, আশা সৌগতর

বুধবার সকালে হাওড়ার চা চক্র সারেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। পার্বতী সিনেমা হলের সামনে চা চক্রে শুভেন্দু প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ''মঙ্গলবার তৃণমূলের এক সাংসদের মুখে এই কথা শুনেছি। তবে এ ব্যাপারে শুভেন্দু এখনও কিছু বলেননি। শুভেন্দু সহ অনেক বিধায়ক দল ছাড়তে পারেন। আগামী দিনে অনেক কিছুই ঘটতে পারে''। বিশ্বাস প্রকাশ করে জানান বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু।

আগামী ৭ ডিসেম্বর মেদিনীপুরের জনসভা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দলত্যাগের জল্পনার মধ্যে ওই সভায় মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে শুভেন্দু থাকতে পারেন বলে সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এই বিষয়টিকেও তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। তিনি বলেন, ''মুখ্যমন্ত্রী-মমতা একমঞ্চে উপস্থিতি নিয়েও কোনও হেরফের হবে না। তৃণমূল এখন জনবিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে। দলে বিশেষ ব্যক্তির কোনও ভূমিকা নেই। তাই কিনা মানুষকে সঙ্গে নিয়ে একুশের লড়াই লড়ৃবেন''। 

আরও পড়ুন-রাজ্যে আসছে তথ্য প্রযুক্তি সংস্থা ইনফোসিস, কর্মসংস্থানে কী বার্তা দিলেন মমতা

আরও পড়ুন-আমপান দুর্নীতি মামলায় চাপে রাজ্য, অডিটের দায়িত্ব কেন্দ্রীয় সংস্থা CAG-কে দিল হাইকোর্ট

পাশাপাশি, ভোট কৌশুলী প্রশান্ত কিশোরকে নিয়ে মন্তব্য করেন তিনি। বলেন, ''প্রশান্ত কিশোরকে যে ৫৫০ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। তা জনগণের টাকা। অবিলম্বে সেই টাকা ফেরত দেওয়া হোক''। অন্যদিকে, শুভেন্দু প্রসঙ্গে সায়ন্তনের করা মন্তব্যকে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করেছেন সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায়। তিনি বলেন, ''আশায় মরে চাষা। শুভেন্দু অধিকারী তাঁর দলেই আছেন। লড়াই করে তিনি নেতা হয়েছেন। মমতার নেতৃত্বে শুভেন্দুকে সঙ্গে নিয়ে আগামী বিধানসভা ভোটে সবাই লড়াই করবেন''।