রাজ্যে, এখনও আরও ৪৮ ঘন্টা শীতের আমেজ থাকবে । উত্তুরে হাওয়া থাকলেও দাপট কমবে। আগামী ৪৮ ঘন্টা তাপমাত্রা স্বাভাবিকের নিচে থাকবে। দুদিনের পর ধীরে ধীরে তাপমাত্রা বাড়তে পারে। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ বাড়বে। কলকাতা সহ রাজ্যজুড়ে কুয়াশা।কলকাতায় আজ সকালের দিকে  কুয়াশা, পরে আংশিক মেঘলা আকাশ। শহরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা আজও স্বাভাবিকের ২ ডিগ্রী কম। আজ সকালের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

আরও পড়ুন, সংসার সামলেই স্বপ্নপূরণ, বিশ্বসুন্দরী খেতাবের চূড়ান্ত লড়াইয়ে কলকাতার বধূ

গত কয়েকদিনে রাজ্য়ের অন্য়ান্য় জায়গা গুলিতে তাপমাত্রা এখনও স্বাবাবিকের নীচে। কোচবিহার এর তাপমাত্রা ১১.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, জলপাইগুড়ি তাপমাত্রা  ১১.২  ডিগ্রি সেলসিয়াস  কালিম্পং তাপমাত্রা  ৫.৫  ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং দার্জিলিং তাপমাত্রা আরও কমে ৩.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে এসে দাড়িয়েছে। জম্বু কাশ্মীরে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা। লাক্ষাদ্বীপের কাছে বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ অক্ষরেখা ও ঘূর্ণাবর্ত। বাতাসে বাড়ছে জলীয় বাষ্প। এর প্রভাবে আগামী দিনে জাঁকিয়ে শীতের প্রভাব কমবে।

অন্য়দিকে, বালুরঘাট এর তাপমাত্রা ৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মালদা তাপমাত্রা ১১.৯  ডিগ্রি সেলসিয়াস, শিলিগুড়ি তাপমাত্রা  ১০.৮    ডিগ্রি সেলসিয়াস, আসানসোল তাপমাত্রা ১১.৮ডিগ্রি সেলসিয়াস, বাঁকুড়া তাপমাত্রা ১২.৪    ডিগ্রি সেলসিয়াস, বহরমপুর তাপমাত্রা  ১০.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বর্ধমান তাপমাত্রা ১০.২   ডিগ্রি সেলসিয়াস,   ক্যানিং তাপমাত্রা ১১.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস,   কাঁথি তাপমাত্রা ৮.৫   ডিগ্রি সেলসিয়াস, ডায়মন্ডহারবার তাপমাত্রা  ১২.৪   ডিগ্রি সেলসিয়াস, দীঘা তাপমাত্রা ১২.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, হলদিয়া  তাপমাত্রা ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কলাইকুন্ডা তাপমাত্রা  ১১.৮  ডিগ্রি সেলসিয়াস, মেদিনীপুর তাপমাত্রা ১২.১  ডিগ্রি সেলসিয়াস, পানাগর তাপমাত্রা ১০.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস ,পুরুলিয়া তাপমাত্রা ১০.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শ্রীনিকেতন তাপমাত্রা  ৯.৮  ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আরও পড়ুন, নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদের পথে পড়ুয়ারা, শহরে উঠল আজাদির স্লোগান

আবহাওয়া দফতরের খবর অনুযায়ী, তাপমাত্রা প্রায় স্বাভাবিক হতে বড়দিন অবধি অপেক্ষা করতেই হবে। পারদ চড়লেও ঠান্ডার আমেজ ভালই উপভোগ করতে পারবেন রাজ্যবাসী, এমনটাই জানা গিয়েছে হাওয়া অফিস সূত্রে। আর এই তাপমাত্রা বাড়ার নেপথ্যে আরব সাগরের নিম্নচাপ অক্ষরেখা। সঙ্গে দোসর নতুন পশ্চিমি ঝঞ্ঝা। নতুন নিম্নচাপ অক্ষরেখাটি মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ হয়ে পূর্ব ভারতে অবস্থান করছে।