শহর কলকাতা সহ রাজ্যে আগামী ২৪ ঘণ্টায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। নতুন করে আবার পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ঢুকছে মঙ্গল বুধবার নাগাদ। দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমের জেলাগুলিতেও হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা। উত্তরবঙ্গেও হালকা ঝড় বৃষ্টির পূর্বাভাস। রবিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৯.২ডিগ্রি সেলসিয়াস।  এই মুহূর্তে শহরের তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

আরও পড়ুন, ৪টি ক্যাটেগরিতে চিহ্নিতকরণ, করোনা রুখতে নয়া নিদান স্বাস্থ্য় ভবনের

সূত্রের খবর, সিকিম সংলগ্ন উত্তরবঙ্গে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা। সোমবার থেকে দক্ষিণবঙ্গে পরিষ্কার আকাশ। সিকিম সংলগ্ন উত্তরবঙ্গে হালকা বৃষ্টি সোমবারেও। আগামী ২৪ ঘণ্টায় হালকা বৃষ্টি হতে পারে মুর্শিদাবাদ বীরভূম দুই বর্ধমান পুরুলিয়া ও বাঁকুড়া তে। সোমবার ও হালকা বৃষ্টি হতে পারে দুই মেদিনীপুর এ। আগামী ২৪ ঘণ্টায় উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে বিক্ষিপ্ত ভাবে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা। সোমবার এ দার্জিলিং সহ সংলগ্ন দুএক জেলায় হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা। রবিবার, শহর কলকাতার আকাশ আজ আংশিক মেঘলা থাকবে। আজ সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৯.২ডিগ্রি সেলসিয়াস ।  যা স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি কম। এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা  ৩২.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  যা স্বাভাবাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম।আবহাওয়া দফতরের খবর অনুযায়ী, রবিবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকতে পারে ৩২.১   ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি।  শহরের বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক  ৯৩ শতাংশ। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ন্যূনতম ৪৪ শতাংশ। গতসপ্তাহে শনিবার শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২০.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা  ২৭.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ছয় ডিগ্রি কম। এই মুহূর্তে শহরের তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

আরও পড়ুন, করোনা মোকাবিলায় কড়া নজরদারি রাজ্য সরকারের, রাজারহাটে প্রস্তুত 'কোয়ারান্টাইন

আবহাওয়া দফতরের খবর অনুযায়ী, বঙ্গোপসাগরে একটি বিপরীত ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। তার ফলে বাতাসের উপরিভাগে একটি শুষ্ক ভাব তৈরি হয়েছে। এর পাশাপাশি বিহার ও ঝাড়খণ্ড অঞ্চলে নাগাড়ে ঝড়ের সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে। উত্তরবঙ্গের দিকেও ভালো পরিমাণ ঝড় বৃষ্টি হচ্ছে। এই চতুর্মুখী প্রভাবেই সকাল থেকে কলকাতা এবং তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে নাগাড়ে ঝড়ো হাওয়া দিচ্ছে বলে জানাচ্ছেন আবহাওয়াবিদরা।  


আরও পড়ুন, দলে এলেও পদ্ম কাঁটা, শোভনকে মেয়র প্রোজেক্ট করবে না তৃণমূল