Asianet News BanglaAsianet News Bangla

'বাংলাদেশের ঘটনায় কারা উপকৃত হচ্ছে', শুভেন্দুর কথা টেনে BJP-কে তোপ কুণালের

'বাংলাদেশের ঘটনায় কারা উপকৃত হচ্ছে,  এর তদন্ত হওয়া প্রয়োজন', বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর হিংসাকাণ্ডে  রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কথা টেনে তোপ দাগলেন তৃণমূলের কুণাল ঘোষ।  

TMC Leader  Kunal Ghosh attacks to BJP Leader Suvendu Adhikari on Bangladesh Violence Issue RTB
Author
Kolkata, First Published Oct 19, 2021, 9:30 AM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

'বাংলাদেশের (Bangladesh) ঘটনায় কারা উপকৃত হচ্ছে', বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর হিংসাকাণ্ডে  রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) কথা টেনে তোপ দাগলেন তৃণমূলের কুণাল ঘোষ (Kunal Ghosh)। উল্লেখ্য, কুণালের দাবি অনুযায়ী, দুর্গাপুজোয় বাংলাদেশে ৫০০ মন্ডপ এবং ২০০ মন্দিরে হামলা চালানো হয়েছে। এই ঘটনায় ধীক্কারও জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন, Abbas Siddiqui: 'সাম্প্রদায়িক হিংসায় উস্কানি', আব্বাসের গ্রেফতারির চেয়ে মমতাকে চিঠি বাংলাপক্ষের

কুণাল ঘোষ বলেছেন, 'বাংলাদেশে যা হয়েছে, খুবই খারাপ। কিন্তু এর জন্য সুবিধা কারা পাবে',  প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, 'শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন যে, বাংলাদেশে যা হয়েছে, তাঁতে আমাদের ভোট বাড়বে। তাহলে ভেবে দেখুন, বাংলাদেশের ঘটনায় কারা উপকৃত হচ্ছে। শুভেন্দু বলেছেন, তাঁদের ভোট বাড়বে। এটা বেনিফিশিয়ারি। এর নেপথ্যে বিজেপির কোনও ভূমিকা নেই তো', বলে প্রশ্ন ছুঁড়েছেন তিনি। পাশাপাশি 'তদন্ত হওয়া প্রয়োজন', বলে দাবি জানিয়েছে কুণাল ঘোষ। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের হিংসার ইস্যুতে শুভেন্দু অধিকারীর নের্তৃত্বে একটি দল কলকাতায় বাংলাদেশের হাইকমিশনের দফতরে গিয়ে কথা বলেছেন। শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, 'যদি বাংলাদেশে অবস্থার পরিবর্তন না হয়, তাহলে তাঁরা পেট্রোপোল সীমান্তে অবস্থান করবেন। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে ৫০০ মন্ডপ এবং ২০০ মন্দিরে হামলা চালানো হয়েছে। এই ঘটনায় রাজ্য জুড়ে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে বিজেপি।'

"

আরও পড়ুন, 'খোদ পশ্চিমবঙ্গের দুর্গা প্রতিমা ভাঙা হয়েছে', পুজোয় হিংসার ইস্যুতে বিস্ফোরক দিলীপ-শুভেন্দু
প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে এই ঘটনার সূত্রপাত কুমিল্লার একটি পুজো প্যাণ্ডেলকে কেন্দ্র করে। সোশ্যাল মিডিয়ায় কুমিল্লার ওই পুজো কমিটির বিরুদ্ধে কোরানের অবমাননা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তারপরই ওই পুজো মণ্ডপে একদল দুষ্কৃতী হামলা চালায় বলে অভিযোগ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যর্থ হয় বাংলাদেশের পুলিশ।  কুমিল্লার হিংসার ঘটনার পরই চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ চট্টগ্রাম ও বাংশখালি ও কক্সবাজারের পেকুয়া মন্দির এলাকাতে ভাঙচুর ও তাণ্ডবের ঘটনা ঘটে। তারপরেও থামেনি হিংসা। তাণ্ডবলীলা চলে বাংলাদেশের ইসকনের মন্দিরে।  শনিবার নোয়াখালির চৌমুহনীতে ইসকন মন্দিরে প্রায় ৫০০ জন দুষ্কৃতী হামলা চালিয়েছে। এরপর  মন্দির সংলগ্ন পুকুরের কাছ থেকে প্রান্ত চন্দ্র নমোদাস নামের এক যুবকের দেহ উদ্ধার হয়। এই হিংসার ঘটনায় জখম হয়েছেন ৩০ জন। পুলিশ সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই বাংলাদেশে এই হিংসার ঘটনার একাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

আরও দেখুন, বিরিয়ানি থেকে তন্দুরি, রইল কলকাতার সেরা খাবারের ঠিকানার হদিশ  

আরও দেখুন, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গা, থাকল ছবি সহ ঠিকানা  

আরও দেখুন, মাছ ধরতে ভালবাসেন, বেরিয়ে পড়ুন কলকাতার কাছেই এই ঠিকানায়  

আরও পড়ুন, ভাইরাসের ভয় নেই তেমন এখানে, ঘুরে আসুন ভুটানে  

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios