রাজনীতি থেকে অপরাধ, মানুষের সুখ,দুঃখের খবর থেকে আরও রকমারি ঘটনা- সময়ের সঙ্গে ঘটে চলে একের পর এক নিউজ। তার মধ্য়ে থেকেও বেছে আনা কিছু খবর। সময়ে সময়ে যার আপডেট পাবেন আপনি। তাই কলকাতাকে জানতে খবরে থাকুন,খবর রাখুন।

১) রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে এবার কেন্দ্রীয়  স্বাস্থ্য় মন্ত্রকের রিপোর্টের  সঙ্গে পার্থক্য দেখা গেল রাজ্য় সরকারের। মঙ্গলবার মন্ত্রকের বুলেটিনে বলা হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৯১। যদিও নবান্নে প্রেস কনফারেন্স করে খোদ মুখ্য়মন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্য়ে করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা ৬৯। যার জেরে করোনা নিয়েও কেন্দ্র-রাজ্য় সংঘাত শুরু। কেন্দ্রের হিসেবে রাজ্য়ে করোনায় আক্রান্ত ৯১,মমতার দাবি ৬৯..

২) মিষ্টির দোকানের পর এবার লকডাউনে ছাড় দেওয়া হল ফুলের ব্যবসায়ীদের। বুধবার থেকেই খুলে যাবে ফুলের পাইকারি বাজার। এমনকী পাড়ায় পাড়ায় ফুল নিয়ে বসতে পারবেন বিক্রেতারা। পুলিশ কোনওভাবেই এদের ব্য়বসায় হস্তক্ষেপ করবে না। মঙ্গলবার নবান্নে লকডাউনেও এই ঘোষণা করেন মুখ্য়মন্ত্রী। লকডাউনেও বসবে ফুলের বাজার, বুধবার থেকে ছাড়পত্র বিড়ি শ্রমিকদের.

৩) তিনে থমকে রইল না মৃতের সংখ্যা। নবান্নে সাংবাদিক  বৈঠকে মুখ্য়মন্ত্রী জানিয়ে দিলেন, রাজ্য়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে পাঁচ। মঙ্গলবার পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৯। যার মধ্য়ে রয়েছে ৯টি পরিবার। নতুন করে যে আটজনের করোনা ধরা পড়েছে, তাদের মধ্য়ে একটি পরিবারেরই চার জনের  শরীরে সংক্রমণ ছড়িয়েছে।রাজ্য়ে করোনায় মৃত বেড়ে ৫ আক্রান্ত ৬৯, খোদ জানালেন মুখ্য়মন্ত্রী.

৪) নাম কিনতে গিয়ে দাম দিচ্ছেন না খোদ দলের নেতারা। উল্টে রেশন দোকান থেকেই চলছে লুঠপাট। ত্রাণ বিলি করতে গিয়ে গরিবের শস্য তুলে নিচ্ছে খোদ দলের সদস্যরা। সম্প্রতি করোনা আতঙ্কের মধ্য়েই এরকম একাদিক ঘটনায় বিব্রত মমতার সরকার। শেষমেশ নাম না করে দলের নেতাদের চরম বার্তা দিলেন মুখ্য়মন্ত্রী।  দিনদুপুরে রেশন দোকান লুঠ তৃণমূল কাউন্সিলরের, নবান্নে চরম বার্তা দিলেন মুখ্য়মন্ত্রী

৫) এতদিন করোনা রুখতে কেন্দ্রীয় সরকারের অসহযোগিতার অভিযোগ করছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এবার কেন্দ্রের পাঠানো পিপিই (স্বাস্থ্য়কর্মীদের পোশাক)-এর রং নিয়ে প্রশ্ন তুললেন মমতা। রাজ্য়কে পাঠানো পোশাকের রং হলুদ কেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি। সরাসরি কিছু না বললেও ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, কেন্দ্রের হলুদ পিপিই-তে 'গেরুয়াকরণ' দেখছেন মুখ্য়মন্ত্রী। কেন্দ্রের পাঠানো পিপিই-র রং হলুদ কেন, করোনাতেও 'গেরুয়াকরণ' দেখছেন মুখ্য়মন্ত্রী.

৬) কেন্দ্রীয় সরকারের ধাঁচে এবার বাংলার মন্ত্রী, বিধায়কদেরও বেতন কমানোর পরামর্শ দিলেন রাজ্য়পাল জগদীপ ধনখড়। টুইটারে মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ের উদ্দেশ্য়ে এই বার্তা দিয়েছেন তিনি। রাজ্য়পাল বলেছেন, করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে রাজ্য়ের বিধায়ক মন্ত্রীদেরও ৩০ শতাংশ অর্থ করোনা মোকাবিলায় ব্যয় করা উচিত। কেন্দ্রের ধাঁচে বেতন কমানো হোক রাজ্য়ের বিধায়কদের,মমতাকে আর্জি রাজ্য়পালের

৭) লকডাউনে বাড়ির বাইরে মেপে পা। বাজারে যাওয়ার আগে বুঝে নিতে হচ্ছে সপ্তাহের হিসেব। অথচ বাড়ি ফিরেই পরিশ্র্ত জলের অভাব তাল কাটছে মহানগরের একাংশে। রান্না করতে গিয়ে এই জল দেখেই আর কাওয়ার ইচ্ছে  থাকছে না কারও। বেগতিক দেখে জলও কিনে আনতে হচ্ছে বাজার থেকে। লকডাউন 'এফেক্ট',কল খুলতেই কালো জল কলকাতায়.

৮) করোনা রোধে প্রতিষেধক বেরোইনি এখনও। পাওয়া যাইনি কোভিড১৯ মোকাবিলার কোনও ওষুধ। যদিও স্বাস্থ্য় ভবনের কর্তারা বলছেন, করোনা রুখতে অসাধারণ কাজ করছে ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রক্সি-ক্লোরোকুইন। ইতিমধ্য়েই বিশ্ববাজারে পৌঁছে গিয়েছে সেই খবর। যেকারণে রাতারাতি করোনা মোকাবিলায়  মহৌষধির রূপ নিয়েছে হাইড্রক্সি-ক্লোরোকুইন। এই ওষুধের জন্য় পরম বন্ধু মোদীকে হুমকি দিতে ছাড়ছেন না আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।ওষুধের জন্য় বন্ধু মোদীও শত্র্ু ট্রাম্পের, কেন করোনায় মহৌষধি হাইড্রক্সি-ক্লোরোকুইন.

৯)করোনা আতঙ্কের মধ্য়েই মহাজাগতিক দৃশ্যের সাক্ষী থাকবে বিশ্ব। এবার পিঙ্ক মুন বা গোলাপি চাঁদের মতো মহাজাগতিক দৃশ্যের মুখোমুখি হতে চলেছে ব্রহ্মাণ্ড। আগামী ৯ এপ্রিল এই ছবি দেখেতে পাবে বিশ্ববাসী। ওইদিন সুপারমুন হিসেবে নিজেকে মেলে ধরবে পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ। আগামী পূর্ণিমাতেই আকাশে দেখা পাওয়া যাবে সুপার মুনের। কলকাতার আকাশে গোলাপি চাঁদ ! করোনার মাঝেই মহাজাগতিক দৃশ্য.

১০) এত ভঙ্গ বঙ্গদেশ, তবু রঙ্গে  ভরা।  এখানে সবজির দাম কমছে। কিন্তু মদের দাম বেড়ে চলেছে হু-হু করে। তিন.থেকে চারগুণ দামে কালোবাজারি হচ্ছে বাংলা মদের! আর দ্বিগুণ দামে বিকোচ্ছে রয়ালস্টাগ আর রাম!.লকডাউনের বাজারে হু-হু করে বাড়ছে 'বাংলার' দাম, দ্বিগুণ দামে বিকোচ্ছে 'রাম'..