করোনা  মোকাবিলায় লকডাউন চলছে। আর সেই লকডাউনে বেআইনি ভাবে চাল মজুত করার অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করল  ইবি অর্থাৎ কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট শাখা। খুচরো বাজার ও দোকানে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের জোগান  স্বাভাবিক রাখতে  চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন রাজ্য়ের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পুলিশ প্রশাসন যাতে সেদিকে খেয়াল রাখে, তার জন্য় কড়া নজরদারির নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।   

আরও পড়ুন, ওষুধ খাওয়ার জলও পেলেন না করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি, ভয়ঙ্কর অভিযোগ বেলেঘাটা আইডিতে


শনিবার ইবি-র অফিসারেরা গোপন সূত্রে খবর পেয়ে  কাশীপুর রোড এলাকায় একটি গুদামে তল্লাসি চালান। যেখানে বেআইনি ভাবে চাল মজুত করে রেখেছিলেন এক ব্যবসায়ী। ইবি-র অফিসারেরা ওই গুদাম থেকে ৩৪২টি চালের বস্তা বাজেয়াপ্ত করেন। হাতেনাতে প্রমাণ সহ ব্যবসায়ী সন্তোষ আগরওয়াল এবং আমির আনসারিকে গ্রেফতার করা হয়। জানা গিয়েছে, বাজেয়াপ্ত হওয়া চালের আনুমানিক বাজারমূল্য ২ লক্ষ ৭৪ হাজার টাকা। এই মুহূর্তে ধৃতদের লালবাজারে সেন্ট্রাল লকআপে রাখা হয়েছে তাঁদের।

আরও পড়ুন, শনিবার সকাল থেকেই কলকাতা সহ জেলায় জেলায় চালু বাস পরিষেবা, জানুন বিস্তারিত


শনিবার লকডাউনে ষষ্ঠ দিনেও রাজ্যের বাজারঘাটে বেশ ভালই ভিড় দেখা যায়। যদিও প্রশাসনের তরফে, ভিড় না করার জন্য একান্ত অনুরোধ করা হচ্ছে। তাসত্ত্বেও প্রতি দিনই রাস্তায় মানুষ বেরিয়ে পড়েছেন। এদিকে বাজার করতে এসে ক্রেতাদের অভিযোগ, দোকান-বাজারে অনেক জিনিস পাওয়া যাচ্ছে না। যদিও প্রশাসনিক সূত্রে দাবি, এমন কোনও পরিস্থিতি এখনও এই রাজ্যে তৈরি হয়নি। তবে নবান্ন সূত্রে জানানো হয়েছে, কোনও ব্যবসায়ী যদি বেআইনিভাবে প্রয়োজনীয় জিনিস মজুত করে রাখে তাঁর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন, বাংলার করোনায় দিল্লির গাফিলতি,তেহট্টের আক্রান্ত নিয়ে তথ্য় দেয়নি কেন্দ্র