শহর কলকাতায় সূর্যোদয় বুধবার মেঘের আড়ালেই হয়েছে। বেলা বাড়লেও মেঘ সরে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই। আবহাওয়া দফতরের খবর অনুযায়ী, বুধবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২১.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  যা স্বাভাবিকের থেকে চার ডিগ্রি কম। এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে নয় ডিগ্রি কম। বুধবার ও বৃহস্পতিবার এই দুই দিন ঝড়ের গতিবেগ বাড়বে।  দু'এক জায়গায় ভারী বৃষ্টি অর্থাৎ ৭০ থেকে ১১০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টির পূর্বাভাস। যার দরুণ ফসলের আরও ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন, করোনা পজিটিভ প্রসূতির সুস্থ সন্তান, খুশির হাওয়া ফুলেশ্বরের হাসপাতালে


 আবহাওয়া দফতরের খবর অনুযায়ী, বুধবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২১.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  যা স্বাভাবিকের থেকে চার ডিগ্রি কম। এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে নয় ডিগ্রি কম। শহরের বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক৯৫ শতাংশ। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ন্যূনতম ৬৫ শতাংশ। কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। সেদিক থেকে ঝড়-বৃষ্টি শুরু হওয়াতে শহরের তাপমাত্রা অনেকটাই নেমে গিয়েছে।   গত ৪৮ ঘণ্টায় ৩০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।বুধবার এই মুহূর্তে শহর কলকাতার তাপমাত্রা ২২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

আরও পড়ুন, চরম দারিদ্রেও ৩ বন্ধুর চেষ্টায় মুগ্ধ ভারত সেবাশ্রম, লকডাউনে খাবার পেয়ে আশীর্বাদ পর্ণশ্রীর ৫০টি পরিবারের


কলকাতা সহ গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের ৬০ থেকে ৭০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া।মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের প্রায় সব জেলাতেই। আগামীকাল থেকে ঝড় বৃষ্টির প্রকোপ বাড়বে উত্তরবঙ্গে। রাজ্যজুড়ে ঝড় বৃষ্টি চলবে শুক্রবার পর্যন্ত। উত্তরবঙ্গের পাঁচ জেলা দার্জিলিং, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, জলপাইগুড়ি এবং দক্ষিণবঙ্গের বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর ভারী বৃষ্টির প্রবল সম্ভাবনা। উত্তর প্রদেশ ও বিহারে নিম্নচাপ অক্ষরেখা এবং ঘূর্ণাবর্ত । নিম্নচাপ অক্ষরেখা গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ ঝাড়খন্ড ছত্রিশগড়ের ওপর দিয়ে রয়েছে। এর জেরে বঙ্গোপসাগর থেকে প্রচুর জলীয় বাষ্প ঢুকছে  রাজ্যে। বুধবার ও বৃহস্পতিবার এই দুই দিন ঝড়ের গতিবেগ বাড়বে।  দু'এক জায়গায় ভারী বৃষ্টি অর্থাৎ ৭০ থেকে ১১০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টির পূর্বাভাস। ঝড়ের গতিবেগ কোথাও কোথাও ৭০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় হতে পারে। উল্লেখ্য়, আবহাওয়া দফতর সূত্রের খবর, সোমবার রাতে কলকাতায়  ঝড়ের সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৪৫ কিলোমিটার। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫টা নাগাদ আরও একটি ঝড় আসে। যার সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৫৬ কিলোমিটার। এরই সঙ্গে প্রবল বৃষ্টিও হয়। তারই প্রভাব পড়েছে কৃষিতে। যার দরুণ বুধবারও  ফসলের আরও ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

 

আরও পড়ুন, করোনার কোপ এবার বাইপাসের ধারের বস্তিতে, ১৫০০০ মানুষকে পাঠানো হল কোয়ারেনন্টিনে

আরও পড়ুন, ভেন্টিলেশনে করোনা আক্রান্ত রাজ্য়ের স্বাস্থ্য কর্তা ও সার্জন, উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য দফতর

  'হটস্পট' এলাকা থেকে আসায় প্রসুতিকে ফিরিয়ে দিল এনআরএস, চরম যন্ত্রনা নিয়ে ঘরেই প্রসব-মৃত সদ্যোজাত