শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় বদলের কথা সরকারিভাবে ঘোষণা করল রাজ্য সরকার। প্রাথমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত কোনও স্তরেই শিক্ষক নিয়োগে আর ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া থাকছে না। নিয়োগ হবে শুধুমাত্র লিখিত পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে। 

আরও পড়ুন, কলকাতায় অমিত শাহ, বিক্ষোভ কর্মসূচি শহরের বিভিন্ন জায়গায় বিরোধীদের


প্রসঙ্গত উল্লেখ্য়, প্রাথমিক, উচ্চ প্রাথমিক মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক স্তরে আগে যে নিয়োগ প্রক্রিয়া ছিল তা নিয়ে বিস্তর অভিযোগ উঠেছে। ইন্টারভিউতে পরীক্ষকদের বিরুদ্ধে পেনসিলে দিয়ে নম্বর পরিবর্তনের অভিযোগ উঠে এসেছে। আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন বহু পরীক্ষার্থী। এর ফলে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া ক্রমশ জটিল ও দীর্ঘতর হয়েছে। ইতিমধ্য়েই রাজ্যের স্কুলগুলিতে  শিক্ষক নিয়োগের কথা ঘোষণা করেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ২৬ ফেব্রুয়ারি এবিষয়ে নতুন নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে স্কুল শিক্ষা দপ্তর। তবে এনসিটিই-র নিয়ম মেনেই শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। 

আরও পড়ুন, সেলাই ছিঁড়ে ফের শিশুমৃত্যু এনআরএসে, নিম্নমানের সুতো দিয়ে অস্ত্রোপচারের অভিযোগ

অপরদিকে, তফসিলি জাতি ও উপজাতি প্রার্থীদের কোনও ফি দিতে হবে না, জানাল রাজ্য় সরকার। কোনও পরীক্ষার্থী তার উত্তরপত্র চ্যালেঞ্জ করতে চাইলে তা তিন বছরের মধ্যে করতে হবে। টেট-এ ইংরেজি এবং মাতৃভাষার ক্ষেত্রে জোর দেওয়া হবে। এদিকে আগামী বছর রাজ্যে বিধানসভা ভোট। তার আগেই তাই হাজার হাজার পদে শিক্ষক নিয়োগের কাজ শেষ করতে চায় রাজ্য সরকার। ইন্টারভিউতে কেউ যাতে স্বজনপোষণের অভিযোগ আনতে না পারেন তা নিশ্চিত করতে এই প্রক্রিয়া তুলে দিল রাজ্য সরকার। 

আরও পড়ুন, উত্তাল ধর্মতলা, অমিত শাহর কনভয় আটকাতে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ