'ডক্টর যোগীরাজ। বেলেঘাটা আইডির চিকিৎসক। রোগীদের সেবা করতে করতে তিনি করোনায় আক্রান্ত।' সম্প্রতি এমনই বার্তা দিয়ে সোশ্য়াল মিডিয়ায় কেউ পোস্ট করে।  শুক্রবার এই পোস্টটি ভাইরাল হয়৷ সাধারন মানুষ এই পোস্ট না বুঝেই শেয়ার করতে শুরু করে।  আর এতেই দ্রুত বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে। কারণ এই খবরটি সম্পূর্ণ মিথ্যে। এরপরই নড়চড়ে বসে প্রসাশন৷

আরও পড়ুন, করনা রুখতে এগিয়ে এল যাদবপুর, একদিনের বেতন দান করলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক-আধিকারিকরা


শুক্রবার রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে নিশ্চিত করা হয়েছে, বেলেঘাটা আইডির কোনও চিকিৎসক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হননি। এদিকে সোশ্য়ালমিডিয়ায় এই ভাবে ভুয়ো খবর ছড়ানোয় অকারণ বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে।করোনাভাইরাস নিয়ে ভুয়ো খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করলে প্রশাসন কড়া ব্যবস্থা নেবে আবেই জানিয়ে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ আর সেই কারণেই যে এই কাজ করেছে, তার বিরুদ্ধে এফআইআর করবে রাজ্য সরকার। এদিন সরকারের তরফে বলা হয়, যার প্রোফাইল থেকে এই ভুয়ো খবর ছড়িয়েছে, তাকে চিহ্নিত করা হচ্ছে। সাইবার ক্রাইমকে ইতিমধ্যেই এর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এমন কঠিন পরিস্থিতিতে যাতে কেউ আর গুজব ছড়ানোর সাহস না পায়। তাই নেটিজেনকে খুঁজে বের করে তার বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন।

আরও পড়ুন, জোর করে ট্রেন থেকে স্বাস্থ্যকর্মী দম্পতিকে নামিয়ে দিল আরপিএফ, রেল বলল 'আউটসাইডার'

 করোনা নিয়ে আগেও অনেক মিথ্য়ে খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়েছে৷ লকডাউন চলাকালীন অনেকেই তার সত্যতা যাচাই না করেই শেয়ার করে দিচ্ছেন। আর তাতেই মুহূর্তে ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়ে বিভ্রান্তি তৈরি হচ্ছে। যার জেরে বাড়ছে আতঙ্ক। হোয়াটসঅ্যাপ,ফেসবুক এবং টুইটারের মতো সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মগুলিতেই ছড়াচ্ছে এই ভুয়ো খবর। এর জন্য কড়া পদক্ষেপও নিচ্ছে সোশ্যাল সাইটগুলি।  বেলেঘাটা আইডির চিকিৎসকের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরে রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়েন রাজ্যবাসী। বিশেষ করে কলকাতার বাসিন্দারা। তবে স্বাস্থ্য দপ্তর খবরটি ভুয়ো বলে জানানোয় আপাতত স্বস্তিতে শহরবাসী।

আরও পড়ুন, করোনা মারতে টিউবওয়েলে কীটনাশক, বাসন্তীতে হাতাহাতি, জানুন আসল সত্যি