করোনা রুখতে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের আবেদনে সাড়া দিল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়।  বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, অধ্যাপিকা, আধিকারিক এবং শিক্ষা কর্মীদের ন্যূনতম একদিনের বেতন মুখ্যমন্ত্রীর  ত্রাণ তহবিলে দেওয়ার অনুরোধ জানালেন উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। ইতিমধ্যেই সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে  যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক-আধিকারিকরা অনুদান দিতে শুরু করেছেন। 

আরও পড়ুন, লকডাউনেও রান্নার গ্য়াস সিলিন্ডার পাওয়া যাবে, আশ্বাস দিচ্ছে সংস্থাগুলি

শুক্রবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে লিখিত বিবৃতি দিয়ে আবেদন রেখেছেন উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। বিবৃতিতে তিনি জানিয়েছেন 'দেশে করোনাভাইরাস মোকাবিলার জন্য আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। এগিয়ে আসার উপায় হিসাবে প্রাথমিকভাবে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে আমাদের সবারই কিছু না কিছু আর্থিক অনুদান দেওয়া দরকার।' অপরদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে জানানো হয়েছে, আর্থিক অনুদান দিলেই পাওয়া যাবে ইনকাম ট্যাক্সের সুবিধা। উপাচার্যের এই আবেদনকে স্বাগত জানিয়েছে  জুটা অর্থাৎ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক সংগঠন। পাশাপাশি এরই মাঝে বিভিন্ন শিক্ষক সংগঠনগুলোও আর্থিক অনুদান দেওয়ার ব্যাপারে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। 

আরও পড়ুন, জোর করে ট্রেন থেকে স্বাস্থ্যকর্মী দম্পতিকে নামিয়ে দিল আরপিএফ, রেল বলল 'আউটসাইডার'

বুধবার রাতে রাজ্যের শিক্ষক- শিক্ষিকা ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলির অধ্যাপক-অধ্যাপিকা, আধিকারিকদের কাছে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে করোনাভাইরাস মোকাবিলার জন্য আর্থিক অনুদান দেওয়ার আবেদন রেখেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শিক্ষক-শিক্ষিকারা অনুদান দিতে শুরু করেছেন। অপরদিকে শাসকদলের অধ্যাপক সংগঠন 'ওয়েবকুপা'-র তরফে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ৫০হাজার টাকা আর্থিক অনুদান দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও অন্যান্য অধ্যাপক সংগঠনগুলিও এই উদ্য়োগে সামিল হওয়ার জন্য় প্রস্তুতি শুরু করেছে । তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক সংগঠন।

আরও পড়ুন, এবার নিজের খরচে হোটেলেও থাকা যাবে কোয়রান্টিনে, জানাল স্বাস্থ্য দফতর