গোষ্ঠি সংক্রমণ রুখতে রাজ্য়ের বন্দিদের একাংশকে করোনা মুক্তি দেওয়া হয়েছিল। আর তারপর মাস ঘুরতে না ঘুরতেই সেই করোনা মুক্তি পাওয়া এক বন্দি চুরির দায়ে ফের পুলিশের জালে ধরা পড়ল। তবে তাঁর সঙ্গে অন্য কারও যোগ রয়েছে কি না, তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন, করোনা মোকাবিলায় বিপুল খরচ, নতুন নিয়োগ বন্ধের সিদ্ধান্ত রাজ্যের


পুলিশি সূত্রে জানা গিয়েছে, লকডাউনের সময় এক যুবককে সন্দেহজনকভাবে ঘুরতে দেখে নিউ আলিপুর থানার অফিসাররা। তার হাবভাবেই সন্দেহ হয় পুলিশের। জিজ্ঞাসাবাদ করলে জানা যায়, বাড়ি বেহালার আর ডি বাগানে। গত বছর বাইক চুরির অভিযোগে মহেশতলা থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করেছিল তাকে। তার কাছ থেকে কয়েকটি বাইকও পুলিশ উদ্ধার করে। এই তথ্য পাওয়ার পরই যুবককে গ্রেপ্তার করে নিউ আলিপুর থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন, 'জনসংখ্য়ার অনুপাতে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া অনেক কম', অভয় বার্তা দিলেন চিকিৎসক কুনাল সরকার

পুলিশি সূত্রে খবর, জেরার মুখে ওই যুবক জানিয়েছে গত ডিসেম্বরে কলকাতা ছেড়ে পালানোর পর সে নদিয়ার ধুবুলিয়ায় থাকতে শুরু করে। সেখানে একটি বাইক চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে সুমন। এতদিন সে কৃষ্ণনগর জেলে ছিল । সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের হাত থেকে জেলের বন্দিদের বাঁচাতে অনেককেই ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য সরকার।  গত ১ এপ্রিল সুমন ছাড়া পায় জেল থেকে। এরপরই সে কলকাতায় চলে আসে। মোবাইল চুরির কথা স্বীকার করে নিয়েছে ওই ধৃত। তাকে জেরা করে উদ্ধার হয়েছে একটি ল্যাপটপ।

 

 

 রাজ্য়ে করোনায় আক্রান্ত এবার এক নার্স, পরিবারকে কোয়ারেনটাইনে থাকার নির্দেশ স্বাস্থ্য দফতরের

করোনা আক্রান্তদের এমআর বাঙ্গুরে স্থানান্তর ঘিরে তুলকালাম, অভিযোগ নিয়ে অবস্থান বিক্ষোভে নার্সরা

পাঁচিল টপকালেই ভাইরাস এক্সপার্ট সেন্টার, তবুও মুখ ফিরিয়ে মেডিক্য়াল কলেজ