নারী চরিত্র বেজায় জটিল, মেয়েদের মন কিছুতেই বোঝা যায় না- এই সব বিষয়গুলি প্রায়ই ছেলেদের বলতে শোনা যায়। সঙ্গিনীর মন কিছুতেই বুঝে উঠতে পারে না ছেলেরা। তাঁদের মতে, খুব সাধারণ বিষয়ে বা অল্পতেই রেগে যায় মেয়েরা। এই বিষয়ে বেশ কিছু মনোবিজ্ঞানীদের মত, মেয়েরা তাঁদের সঙ্গীর মধ্যে যদি কোনও স্বভাব বা অভ্যাস অপছন্দ করে। আর বার বার যদি সেই স্বভাব বা অভ্যাসগুলো তার সঙ্গীর মধ্যে খুঁজে পায় তাহলেই মেয়েরা রেগে যায়। এই বিষয়ে মার্কিন একদল গবেষক গবেষনার মাধ্যমে জানতে পেরেছেন, ছেলেদের কোন স্বভাবগুলি মেয়েরা একেবারেই পছন্দ করেন না। জেনে নেওয়া যাক সেগুলি-

আরও পড়ুন- সাধ্যের মধ্যে দুর্দান্ত ফিচার নিয়ে হাজির, ওয়াটার প্রুফ ওয়্যারলেস ব্লুটুথ স্পিকার

মেয়েরা একটু বেশিই অভিমানী, তাই ছোটখাটো বিষয় হলেও কথা দিয়ে সেটা রাখার চেষ্টা করুন। কাজের দোহাই বা কোনও রকমের কোনও অজুহাত দিলে আপনার আর রক্ষা নেই। তাই চেষ্টা করুন মন রাখতে নয়, রাখতে পারলে তবেই কথা দিন।

মেয়েরা তার সঙ্গীর থেকে মিথ্যে কথা একেবারেই সহ্য করতে পারেন না। তাই সমস্যা হলে সব সময় সঙ্গীকে সত্যি কথা বলুন। সমস্যা হলেও সত্যি কথাই বুঝিয়ে বলার চেষ্টা করুন। কারণ মিথ্যে বলে সেই সময়ের মত রেহাই পেলেও, যেদিন তা সামনে আসবে সেদিন শুরু হবে নতুন সমস্যা।

আরও পড়ুন- হারানো জৌলুস ফিরে পেতে, ভরসা রাখুন এক ফোঁটা গ্লিসারিনে

সঙ্গিনীর কাজকে গুরুত্ব দেওয়ার চেষ্টা করুন। সম্ভব হলে কাজে সাহায্যও করতে পারেন। তাই সঙ্গিনীর কাজ সংক্রান্ত কোনও কথা উঠলে, সেগুলি মন দিয়ে শুনুন। সেই বিষয়ে আপনার মতামত রাখুন। তবে সঙ্গিনীর কথা মন দিয়ে না শুনলেও শুরু হবে ঝামেলা।

মেয়েরা কখনোই তার বন্ধু বা পরিবারের সম্পর্কে সমালোচনা একদম শুনতে পছন্দ করে না। তাই কখনই ভুলেও সঙ্গিনীর সামনে তার কাছের মানুষগুলির সম্পর্কে কোনও সমালোচনা ভুলেও নয়।

সঙ্গিনীর উপস্থিতিতে কখনই সেখানে উপস্থিত অন্য কোনও তৃতীয় ব্যক্তিকে বেশি গুরুত্ব দেবেন না। সকলে একসঙ্গে থাকলে সঙ্গিনীকেও সমান গুরুত্ব দিন। বন্ধুদের মাঝে নিয়ে গিয়ে বন্ধুদের সময় দিলেন সঙ্গিনীকে একা রাখলে বিপদ আপনারই।