প্রতিদিনের কাজের চাপে চুলের যত্ন নেওয়া সম্ভব নয়। আর এখন লকডাউনে পর্যাপ্ত সময়ের সঠিক ব্যবহার করুন। মেনে চলুন কয়েকটি ঘরোয়া প্রতিকার যা চুলকে শক্তিশালী এবং পুষ্টিকর করে তুলবে। প্রতিদিনের চুলের যত্নে ভালো আয়ুর্বেদিক তেল দিয়ে চুলে ম্যাসাজ করুন। এটি স্ট্রেস থেকে মুক্তি দিতে সহায়তা করে। চুলের পাশাপাশি মাথা, ঘাড়ে ও কাঁধেও ম্যাসাজ করুন। এটি আপনাকে সতেজ করবে এবং ফলস্বরূপ, আপনি শক্তিশালী বোধ করবেন। জেনে নেওয়া যাক কীভাবে যত্ন নেবেন চুলের।

আরও পড়ুন- সস্তায় গ্রাহকরা পেয়েছিল ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধা, মুকেশ আম্বানির সংস্থা কী কী প্ল্যান নিয়ে হাজির

নারকেল ছাড়াও একটি বড় আলু খোসা ছাড়িয়ে নিন। এরপর আলু কুড়িয়ে তার থেকে রস বার করুন। এবার এতে ২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল দিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি দিয়ে কয়েক মিনিটের জন্য চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করুন। শাওয়ার ক্যাপ বা তোয়ালে দিয়ে মাথাটি ঢেকে দিন। ২ ঘন্টা রেখে তারপরে জল দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।

এক কাপ জলে ১ থেকে ১ টেবিল চামচ ভিনেগার যুক্ত করুন। শ্যাম্পু করার পরে চুলে ভিনেগার মিশ্রণটি লাগান। কিছুক্ষণ পর জল দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।

আরও পড়ুন- তাক লাগানো ফিচার, স্মার্টফোনের পর এবার রোবট ভ্যাকুয়াম ক্লিনার হাজির করল এমআই

তিন চামচ কালো বিউলির ডাল সারা রাত ভিজিয়ে রেখে পরের দিন পিষে নিন। ১ টেবিল চামচ লেবুর রস এবং ১ কাপ দই যোগ করুন। চুল ধুয়ে নেওয়ার আধ ঘন্টা আগে এই হেয়ার প্যাকটি লাগান এবং ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন।

করলার রস চুলের জন্য খুব উপকারী। এই রস মাথায় দিয়ে আধা ঘন্টা পর চুল ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এটি আপনার চুল ঝড়ে পড়ার সমস্যা দূর করবে।

চুলের অবস্থা ভালো করার জন্য চুলে কন্ডিশনের ও হেনা করা খুব ভালো। চুলে হালকা কালার করতে হলে আনতে আপনি চা এর লিকার ব্যবহার করতে পারেন। আবার চুলে হেনা করার জন্য ডিমের মধ্যেও হেনা পাউডার মিশিয়েও চুলে ব্যবহার করতে পারেন। এটি চুল ঘন এবং নরম করে তোলে।

খুশকি দূর করতে বাড়িতে তেল তৈরি করে নিন-

কমলা বা লেবুর খোসা শুকিয়ে তৈরি গুঁড়ো - ১ চামচ
জলপাই বা নারকেল তেল - ১০০ মিলি

একটি প্যানে নারকেল বা জলপাই তেল গরম করুন। কমলা বা লেবুর খোসা শুকিয়ে তৈরি পাউডার যুক্ত করুন। তেল ঠান্ডা হয়ে গেলে তা একটি এয়ার টাইট পাত্রে ঢেলে বহুদিন স্টোর করে রাখতে পারেন।

এই তেল দুই চামচ দিয়ে মাথার স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করুন। এটি প্রায় ৪৫ মিনিটের জন্য মাথায় রেখে দিন। এর পরে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এই তেল সপ্তাহে ২-৩ বার প্রয়োগ করেন তবে আপনি আরও ভাল ফলাফল পাবেন।