লক ডাউন দেশে স্বস্তির খবর দিল আইআইটি দিল্লির গবেষকরা। তাঁরা করোনভাইরাস সনাক্ত করতে সক্ষম একটি কিট ডিজাইন করেছেন। পুনের জাতীয় জীববিজ্ঞান ইনস্টিটিউট এই কিটটির পরীক্ষা করছে। গবেষকদের মতে, এই কিট-টি এমনভাবেই ডিজাইন করা হয়েছে যা বাজারে অনেক কম দামে পাওয়া যাবে। যাতে প্রতিটি পরিবার থেকে অন্তত একটি এই কিট কিনতে পারবে বলে আশাবাদী আইআইটি দিল্লির গবেষকরা।

আরও পড়ুন- কীভাবে করোনা সংক্রমণ থেকে রক্ষা করবেন পরিবার ও নিজেকে, জেনে নিন খুঁটিনাটি

এই গবেষক দলের প্রমুখ অধ্যাপক বিবেকান্দ পেরুমল জানিয়েছেন, আমরা করোনাভাইরাসের আলাদা আলাদা নমুনা সংগ্রহ করে তা গবেষণা করেছি, তাতে এই মারণ ভাইরাসের আলাদা আলাদা  বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সামনে এসেছে। বার বার নিজেকে বদলে ধীরে ধীরে গোটা বিশ্ব গ্রাস করতে চলেছে এই নতুন ভাইরাসের। করোনার এমন স্বতন্ত্র অংশগুলি এই গবেষণায় সামনে এসেছে যা অন্য করোনভাইরাসগুলিতে পাওয়া যায় না। এই কিট-টি দিয়ে ভাইরাস টেস্ট এর সময় করোনভাইরাস শনাক্ত করতে সহায়তা করব।

আরও পড়ুন- আরও ভয়ঙ্কর হয়েছে করোনাভাইরাস, জানুন এই সময় কোনও জিনিসগুলি করবেন এবং কোনটা করবেন না

এই কিটটি তৈরি করেছেন আইআইটির কুসুম স্কুল অফ বায়োলজিকাল সায়েন্স। অধ্যাপক বিবেকানন্দন পেরুমালের মতে, এই নতুন কিটটি করোনা সম্বন্ধে সঠিক তথ্য দেবে। এই কিটটি পুনের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজি থেকে অনুমোদন পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই দেশের জন্য সহায়ক হিসাবে প্রমাণিত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। অধ্যাপক মনোজ মেনন এই বিষয়ে জানিয়েছেন,  কোনও আক্রান্তের শরীরে করোন ভাইরাস আছে কি না এই নতুন কিট-টি তার সঠিক তথ্য দেবে। 

আইআইটি দিল্লি ছাড়াও পুনের আরও একটি ডায়গোননেস্টিক সংস্থা মাই ল্যাব ডিসকভারি সোনিউশ্যান প্রাইভেট লিমিটেট কোভিড১৯ সনাক্ত করার একটি কিট আবিষ্কার করেছে। এই ল্যাবের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মণোজ হাসমুখ জানিয়েছেন, আমাদের গবেষকদের তৈরি কিট-টি  ভারত সরকারে এফডিএ / সিডিএসসিও কর্তৃক অনুমোদিত সেই সঙ্গে মেডিকেল ডিভাইসগুলি অনুমোদনের সবচেয়ে কঠোর মেডিক্যাল ডিভাইস ক্লাস সি এবং ডি-র এমডিআর ২০১৭ নিয়মবিধি রেগুলেশনের থেকে সম্মতিযুক্ত।