মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় মহাকাশ সংস্থা। ১৯৫৮ সালে প্রতিষ্ঠিত এই সংস্থার সদর দফতর ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত। ইতিমধ্যেই জানা গিয়েছে ২০২৪ সালের ১১ই ফেব্রুয়ারি মহাকাশে আবারও পাড়ি দেওয়ার কথা রয়েছে ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন-এর। এখন থেকেই জোড় কদমে প্রস্তুস্তি চলছে তার। তাই নতুন এই পরীক্ষামূলক মহাকাশ এবং চন্দ্র অভিযানের জন্য একেবারে দুজন নতুন লোক খুঁজছে নাসা।

আরও পড়ুন- অ্যাক্টিভ নয়েজ ক্যানসেলেশন সুবিধা-সহ লঞ্চ হল সনি-র নতুন হেডফোন

জানা গিয়েছে, নতুন এই মহাকাশ পরীক্ষার জন্য একেবারে নতুন দুজন মহাকাশচারীর জন্য লোক খুঁজছে এই সংস্থা। এই ২জনের মধ্যে ১জনকে হতে হবে মহিলা। সেই অনুযায়ী এখন থেকে প্রার্থী নির্বাচন শুরু করতে চায় ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন। তাদের দাবি ২০২১-এর মধ্যেই তাদের প্রার্থী বাছাই পক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাবে। বাছাই করা প্রার্থীদের ২ বছর হিউস্টনে জনসন স্পেস সেন্টারে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এরপরেই ২০২৪ সালে এই ২দুই মহাকাশচারীকে পাঠানো হবে এই চন্দ্র এবং মহাকাশ অভিযানে।

এই বিষয়ে নাসা জানিয়েছে, তাদের কাছে আপাতত ৪৮ জন মহাকাশচারী আছেন। সেই সংখ্যাটা যাতে বৃদ্ধি করা যায় সেই জন্য মহাকাশচারীর জন্য  প্রার্থী নির্বাচন পক্রিয়া ভাবনা নেওয়া হয়েছে। তবে এর জন্য প্রয়োজন কিছু যোগ্যতা এবং দক্ষতা। নাসার তরফ থেকে দেওয়া হয়েছে সেই তালিকাও। আর তার জন্য প্রথমেই যেটা থাকতে হবে তা হল, ইঞ্জিনিয়ারিং বা সায়েন্স  স্ট্রিমে মাস্টার ডিগ্রী। ২ বছরের পিএইচডি করা থাকলে আগ্রাধীকার পাবেন। অতিরিক্ত সুবিধা পাবেন মেডিকেল ডিগ্রী থাকা ছাত্রছাত্রীরা। থাকতে হবে ২ বছরের ফ্লাইংয়ে থাকার প্রফেশনাল এক্সপেরিয়েন্স। যদি আবেদনকারী পাইলট হন তবে নূন্যতম ১০০০ ঘণ্টার পাইলট ইন কমান্ড টাইম থাকতে হবে। আবেদনকারীকে দিতে হবে ২ ঘণ্টার একটি অনলাইন পরীক্ষা। যোগ্য প্রার্থীকে নাসার তরফ থেকে দেওয়া হবে ৫৩,৮০০ থেকে ৭০,০০০ ডলারের বেতন। ভারতীয় মূল্যে যা প্রায় ৩৮ লক্ষ টাকা থেকে ৫০ লক্ষ টাকার কাছাকাছি।