গ্রামের মধ্যে বেশ খানিকটা জায়গা জুড়ে পড়ে রয়েছে গোবর। পড়ে রয়েছে বলাটা বোধহয়, ঠিক হবে না। তার থেকে বলা উচিৎ জমা করা হয়েছে। আর সেই গোবরের তালের উপর টেনে হিঁচড়ে ফেলা হচ্ছে শিশুদের। আপনার শুনে মনে হতেই পারে কোনও দোষের জন্য শাস্তি স্বরূপ গোবরে ফেলা হচ্ছে শিশুদের। তবে ঘটনাটা একদমই এই রকম নয়। শিশুদের মঙ্গল কামনায় এমনই রীতি পালন করা এখানকার নিয়ম।

আরও পড়ুন- সোনা কিনলেই হবে না, ধনতেরাসে সৌভাগ্য ফিরে পেতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলি

এই রীতি পালনের নিয়ম রয়েছে মধ্যপ্রদেশের বেতুল নামক অঞ্চলে। গোবর্ধন পুজো উপলক্ষ্যে এই অঞ্চলের মানুষেরা এমনই রীতি পালন করেন। এই রীতি অনুযায়ী, যদি এই বিশেষ দিনে বাচ্চাদের গোবরের উপর ফেলা যায়, তবে বাচ্চাদের শরীর ভালো থাকবে, এবং শিশুরা সৌভাগ্যের অধিকারী হবে।

আরও পড়ুন- কুম্ভ রাশির রয়েছে সম্পর্ক বিচ্ছেদের যোগ, জেনে নিন আপনার লাভ লাইভ কেমন থাকবে আগামী বছরে

মধ্যপ্রদেশের বেতুল অঞ্চলে বহু বছর ধরেই এই রীতি প্রচলিত রয়েছে। এখানে গরুকে অতি পবিত্র বলে মনে করা হয়। গোবর্ধন পুজো হিন্দু উৎসবগুলির মধ্যে অন্যতম একটি। এই উৎসবে ভক্তরা কৃতজ্ঞতার চিহ্ন হিসাবে ভগবান শ্রী কৃষ্ণের নামে প্রচুর নিরামিষ খাবার প্রস্তুত করে এবং উৎসর্গ করে। বৈষ্ণবদের জন্য, এই দিনটি ভাগবত পুরাণে ঘটনার স্মরণ করে যখন ভগবান শ্রীকৃষ্ণ বৃন্দাবনের গ্রামবাসীকে প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে আশ্রয় দেওয়ার জন্য গোবর্ধন পাহাড় তুলেছিলেন। সেই দিনকে স্মরণ করেই ভক্তরা  গোবর্ধন পাহাড় কৃত্তিমভাবে তৈরী করে তাতে খাবার সরবরাহ করেন। 

আরও পড়ুন- ভাই ফোঁটা উপলক্ষ্যে ভাইদের দিন আপনার বানানো রেস্তোরাঁর স্বাদ বাড়িতেই

শুধু এই দেশেই নয় বিদেশেও যত বৈষ্ণব ধর্মাবলম্বী মানুষেরা আছেন তাঁদের মধ্যে বেশিরভাগই এই উত্সব পালন করেন। বৈষ্ণবদের কাছে এটি অন্যতম ও গুরুত্বপূর্ণ একটি উত্সব। এই উৎসবটির আরেক নাম অন্নকুট উৎসব। কার্তিক মাসের শুক্লপক্ষের প্রথম চন্দ্র দিবসে উৎযাপিত হয়।