নিয়মিত ব্যায়ামের সুফল অনেক। হৃদরোগ থেকে ডায়াবিটিস, জীবনের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে এমন অনেক রোগেই অব্যর্থ দাওয়াই হিসেবে ব্যায়ামের গুরুত্ব সর্বজনবিদিত।ব্য়ায়াম বলতে শুধু নির্দিষ্ট কিছু শরীরচর্চা নয়। যেকোনও ধরনের খেলাধূলাই আসলে বড় ধরনের শরীরচর্চা। তা সে মাঠে গিয়ে ফুটবল খেলা হোক কিংবা জলে নেমে সাঁতার কাটা। একেবারে হাল ফ্য়াশনে বলতে গেলে প্য়ারা গ্লাইডিং করতে গেলেও কম শারীরিক কসরৎ করতে হয় না। সুতরাং যে কোনও ধরনের শারীরিক কসরৎ করলেই মিলবে ফল হাতে নাতে। সপ্তাহে আড়াই থেকে পাঁচ ঘণ্টার ব্যায়াম বৈজ্ঞানিকভাবে ক্যান্সারের সম্ভাবনা কমিয়ে দেয় ।

আরও পড়ুন, অবিশ্বাস্য ফিচার-সহ লঞ্চ হল রিয়েলমি-এর এই স্মার্টফোন, দেখে নিন বিস্তারিত

 স্বাভাবিক ভাবেই এই গবেষণা প্রকাশ্যে আসার পর আলোড়ন পড়ে গিয়েছে দুনিয়াজুড়ে ক্যান্সার চিকিৎসক মহলে। তবে এর ব্যতিক্রম নয় কলকাতাও। নতুন বছরের গোড়ায় তাঁরা বলছেন, ব্যায়াম যে ক্যান্সারের আশঙ্কা কমায়, তা নিয়ে একটা ধারণা ছিল। কিন্তু এই প্রথম এত বড় প্রমাণ মিলল।

আরও পড়ুন, শীতের সেরা টিফিন, চটজলদি বানিয়ে ফেলুন মুলোর পরোটা

 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পাঁচটি, ইউরোপের তিনটি ও অস্ট্রেলিয়ার একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের ১৩ জন চিকিৎসা বিজ্ঞানী এর উপর গবেষনা চালান। তাঁদের মূল কাজটা ছিল শুয়ে বসে অবসর সময় কাটানো এবং ব্যায়াম বা যে কোনও উপায়ে পরিশ্রম করে ঘাম ঝরাতে অভ্যস্ত, এই দুই শ্রেণির মানুষের মধ্যে ক্যান্সারের বীজ কতটা ডালপালা মেলে। তার তুলনামূলক নিরীক্ষণ। ১০ বছর ধরে সারা দুনিয়ার ৭,৫৫,৪৫৯ জনের উপর সমীক্ষা চালিয়ে গবেষকরা দেখেছেন, গড়ে সাপ্তাহিক ঘণ্টা তিনেকের ব্যায়াম কর্কট-হানার শঙ্কাই শুধু কমায় না, ক্যান্সার আক্রান্তের সেরে ওঠার সম্ভাবনাও বাড়িয়ে দেয় অনেকাংশে।