অনেক দিন ধরেই বাজারে ২০০০ টাকার ঘাটতির ফলে প্রায় আড়ালে যেতে বসেছে পিঙ্ক নোট। ২০০০ টাকার নোটের মাধ্যমে আর্থিক তছরূপ ও কর ফাঁকি দেওয়ার মত ঘটনা দিনে দিনে বৃ্দ্ধি পারছে। সেই কারণেই নতুন বছরে নতুন করে ২০০০ টাকার নোট ছাপানো হয়নি। এমনকি বহু এটিএম-এ ইতিমধ্যেই হাওয়া হয়ে গিয়েছে ২০০০ টাকার নোট। এর মধ্যেই গুজব ছেয়ে গিয়েছে আবারও বাজারে ফিরে আসতে চলেছে নতুন হাজার টাকার নোট। এই গুজব উড়িয়েই হাজার টাকার বিষয়ে প্রকাশ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় জানাল পিআইবি ফ্যাক্ট চেক।

আরও পড়ুন- ক্রমশ বাড়ছে করোনা আতঙ্ক, বড়সড় পদক্ষেপ নিল 'গুগল'

আরও পড়ুন- শিশুদের সঙ্গে লড়াইয়ে পারছে না করোনাভাইরাস, কারণ নিয়ে ধন্ধে সংক্রমণ বিশেষজ্ঞরা

পিআইবি ফ্যাক্ট চেক কেন্দ্র সরকারের কাজ হল সরকারের নানান পলিসি, বিভাগ নিয়ে বাজারে ছড়ানো গুজবগুলি আটকানোর কাজ করা। জনসাধারণকে সঠিক ঘটনা বা খবর পৌঁছে দেওয়া যাতে ভুল বা গুজবে কোনও সমস্যায় পড়তে না হয়। সেই পিআইবি ফ্যাক্ট চেক-এর তরফ থেকে জানানো হয়েছে কোনওভাবেই বাজারে এখন নতুন হাজার টাকা আনা হচ্ছে না। এটা সম্পূর্ণ গুজব। আরবিআই এর সূত্রে এমন কোনও নির্দেশ নেই যে, বাজারে নতুন হাজার টাকা আবারও ফিরিয়ে আনা হবে। টুইট করে পিআইবি ফ্যাক্ট চেক জানিয়েছে বাজারে যে হাজার টাকার ছবি ও গুজব রটেছে তা পুরোটাই রটনা। আরবিআই এর তরফ থেকে হাজার টাকা নোটের বিষয়ে কোনও ঘোষনা নেই। 

আরও পড়ুন- প্রচুর শূণ্যপদ রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে, কর্মী নিয়োগ চলছে একাধিক পদে

 

এমনকী পিআইবি ফ্যাক্ট চেক-এর তরফ থেকে এমনটাও জানানো হয়েছে যে, এমন ধরণের সন্দেহজনক কোনও গুজব বা রটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় সামনে আসলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবেন আপনি। সেই খবরের স্ক্রীনসট বা পেজ ইউআরএল নিয়ে পিআইবি ফ্যাক্ট চেক এর হোয়াট্যসঅ্যাপ নম্বর ৯১৮৭৯৯৭১১২৫৯-তে  পাঠিয়ে দিতে পারেন। অথবা মেইল করতে পারেন পিআইবি ফ্যাক্ট চেক এটদ্যারেট জিমেইল ডট কম -এ।