প্রেম করলে নিয়ম করে দেখা সাক্ষাৎ করা, কোনও উপলক্ষে এলেই তাঁকে উপহার দেওয়া এসব করতেই হয়। টাকা দিয়ে প্রেম হয় না এই কথাটা সত্যি। কিন্তু প্রেম করার সময়ে যে পকেট গড়ের মাঠ হবে তা বলাই বাহুল্য। সপ্তাহে একদিন ডেট হোক বা বছরে একটা ট্রিপ, খরচ তো হবেই। তার উপরে যদি প্রেমটা কলেজ বা স্কুলে হয় তা হলে তো মাথায় হাত পড়বেই। পকেট মানি বাঁচিয়ে প্রেমিক বা প্রেমিকার মন জয় করতে হবে। কিন্তু মাসের শেষে এসে পকেট মানি ফুরোলেও, প্রেমে তো আর দাঁড়ি পড়তে পারে না! তাই প্রথম থেকেই প্রেম করতে হবে একটু মগজ লাগিয়ে। প্রেমও হবে আবার পকেটও হালকা হবে না, এই দুটিকে একসঙ্গে মাথায় রেখে এগোতে হবে। 

তা হলে জেনে নেওয়া যাক কী ভাবে কম খরচে প্রেম জমাবেন-

১) সঙ্গী সিনেমা দেখতে চাইছেন। অথচ আপনার পকেট গড়ের মাঠ। তাঁকে নিরাশ করবেন না। বাড়িতেই ডেকে নিন। বাড়িতে নিজের ল্যাপটপ বা কম্পিউটারে মনের মতো সিনেমা বা ওয়েব সিরিজ চালিয়ে দিন। তবে ঘর যেন সুন্দর করে সাজানো থাকে। সিনেমা হলের আমেজ পেতে চিপস, পপকর্ন ও কোল্ড ড্রিঙ্ক কিনে রাখুন। 

আরও পড়ুনঃ সঙ্গীর সামনে কাঁদলে, সে আর গুরুত্ব দেয় না! মনোবিদরা কী বলছেন এ বিষয়ে

২)  সঙ্গী শপিং মলে বেড়াতে যেতে চাইছেন। কিন্তু পকেট ফাঁকা তাই শপিং মলে গিয়ে কিছু কিনতে ইচ্ছে করলেই আপনি কেস খাবেন। এবার একটু মাথা খাটান। সঙ্গীকে বলুন আপনি প্রকৃতি প্রেমী। আর তাঁর সঙ্গে প্রকৃতির সৌন্দর্য হাতে হাত রেখে উপভোগ করতে চান। পারলে তাঁর সৌন্দর্যের সঙ্গে প্রকৃতির তুলনা করে কবিতা শোনান। এতে তিনি মুগ্ধ হবেন। সেদিনটা পার্কে বসে ঝালমুড়ি কাটান। 

৩) প্রায়ই শহরের নামী রেস্তোরাঁয় খেতে যেতে যেতে মাসের শেষে টাকা শেষ। তাই এবার শহরের সাবেকি রেস্তোঁরাগুলিতে ঢুঁ মারুন। সেই পুরনো রেস্তোঁরার ইতিহাস শোনাতে শোনাতে সঙ্গীকে নিয়ে ঢুকে পড়ুন। দিনটা মন্দ কাটবে না। পকেটও ভারী থাকবে। 

আরও পড়ুনঃ সম্বন্ধ করে বিয়েতেও বদলে যাচ্ছে রসায়ন! হিংসা, ডিভোর্স এড়াতে কী করছে নতুন প্রজন্ম

৪) সঙ্গী ডিস্কে গিয়ে নাচানাচি করতে চাইছেন। একটু মাথা খাটিয়ে তাঁকে আরও বড় সারপ্রাইজ দিন। সঙ্গীর বন্ধুবান্ধবদের ডেকে নিজের বাড়িতেই পার্টি করুন। 

৫) রোজ রেস্তোরাঁয় খেয়ে আর ক্যাবে চড়ে পকেট ফাঁকা হয়ে যায়। সঙ্গীকে বোঝান এতে শরীরের ক্ষতি হচ্ছে। ওজন বাড়ছে। শরীরচর্চার প্রয়োজন। তাই সঙ্গীকে নিয়ে শহরের অলিগলি রাস্তাঘাটে ঢুঁ মারুন। হাঁটতে হাঁটতে প্রেম কিন্তু মন্দ না।