শিশুদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে চিন্তার রিপোর্ট পেশ করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) ও ইউনিসেফ। রিপোর্ট থেকে জানা যাচ্ছে, সারা বিশ্বে ২ কোটি শিশু এই মুহূর্তে ডিপথেরিয়া, হাম, টিটেনাসের মতো রোগের ভ্যাকসিন থেকে বঞ্চিত। ২০১৮-য় হওয়া এই সমীক্ষা অনুযায়ী প্রায় প্রতি ১০ জন শিশুর মধ্য়ে ১ শিশু এই ধরনের ভ্যাকসিন নেয়নি। হু আরও বলছে, ভ্যাকসিন দিয়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো গেলে ১০.৫ লক্ষ মৃত্যু বাধা দেওয়া সম্ভব হতো। 

আরও পড়ুনঃ অফিসের কাজের চাপে ঘুম নেই কর্মরতা মহিলাদের চোখে! দাবি করছে নতুন সমীক্ষা

২০১০ থেকে ডিপথেরিয়া, টিটেনাস, পারটুসিস এই তিন রোগের ভ্যাকসিন ও হামের ভ্যাকসিন ৮৬ শতাংশ শিশুকে দেওয়া হচ্ছে। ২০১৮-র হিসেব অনুযায়ী সারা বিশ্বে প্রায় ২ কোটি শিশুকে নিয়মিত ভ্যাকসিন দেওয়া হয়নি। ভ্যাকসিন থেকে বঞ্চিত এই শিশুদের ৬০ শতাংশ মূলত ১০ দেশের বাসিন্দা। এই ১০ দেশের মধ্য়ে রয়েছে ভারতও। এছাড়া রয়েছে, অ্য়াঙ্গোলা, ব্রাজিল, কঙ্গো, ইথিওপিয়া, ইন্দোনেশিয়া, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, ফিলিপিনস ও ভিয়েতনাম। 

হু-এর ডিরেক্টর জেনারেল, ডঃ টেডরোস অ্যাডহ্যানম গেব্রেসিয়ায় জানান, কিছু রোগ রয়েছে যেগুলি শুধুমাত্র ভ্যাকসিনের মাধ্য়মেই আটকানো সম্ভব। মানবসমাজের জন্য এই ভ্যাকসিনেশন প্রয়োজনীয়। 

হু ও ইউনিসেফের এই রিপোর্ট থেকে দেখা যাচ্ছে একেবারে দরিদ্র পরিবারের মধ্যেই দেখা যাচ্ছে শিশুদের ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে না। এছাড়াও যে দেশগুলির  রাজনৈতিক ও অর্থনৈতির পরিস্থিতি ভালো নেই সেই দেশের শিশুরাও ভ্যাকসিন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এমনই অশান্ত দেশগুলির মধ্যে রয়েছে, আফগানিস্তান, ইথিওপিয়া, ইরাক, হাইতি, মালি, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, সোমালিয়া, দক্ষিণ সুদান, সুদান, সিরিয়া, ইয়েমেন। 

হু জানাচ্ছে, এই শিশুরা যদি অসুস্থ হয়ে পড়ে তা হলে পরিণতি খারাপ হতে পারে। যেহেতু এরা ভ্যাকসিন নেয়নি, তাই এদের বড় কোনও অসুখের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানাচ্ছে হু।