জ্যাকেট, জহর কোর্ট, জাম্পারেই জমজমাট শীতের ফ্যাশন। তারমধ্যেই যেন বাজিমাত করেছে পুরোনো দিনের ট্রেন্ডি শাল। শীতকাল মানেই মনে ভরে খাওয়া-দাওয়া,পার্টি, অনুষ্ঠান, বিয়েবাড়ি লেগেই রয়েছে, তার সঙ্গেই হাল ফ্যাশনে বাজিমাত করছে শীতের ফ্যাশন। মেয়েদের অনায়াসেই টেক্কা দিচ্ছে ছেলেরা। কীভাবে হয়ে উঠবেন শীতের ফ্যাশনিস্তা,  স্টাইল স্টেটমেন্টে পুরুষদের জন্য রইল কয়েকটি বিশেষ টিপস।

আরও পড়ুন-ভয়ঙ্কর আকার নিচ্ছে 'Bird Flu' আতঙ্ক, চিকেন-ডিম খাওয়া কতটা নিরাপদ, কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা...


গ্রুমিং

সাজের মধ্যে সবার প্রথমে আসে গ্রুমিং। এই গ্রুমিং যদি ঠিকঠাক না হয় তাহলে কোনও সাজেই আপনাকে মানাবে না। মুখের সঙ্গে মানানসই হেয়ার স্টাইল আর যার দাড়ি রাখতে পছন্দ করেন তারা অবশ্যই সেটা ঠিকভাবে করুন। তবে অনুষ্ঠানের আগে বেশি কিছু এক্সপেরিমেন্ট না করাই ভাল

শাল

শীতের ফ্যাশনে সবচেয়ে আকর্ষণীয় জিনিসটি হল শাল। কিন্তু শাল নামটি শুনলেই আগেকার দিনের কথা অনেকেই মনে করেন। আগেকার দিনে শাল বিশেষ করে বয়স্করাই ব্যবহার করতেন। কিন্তু এখন সেই ধারণা পাল্টেছে। যে কোনও বয়সের পুরুষরা শাল ব্যবহার করতে পারেন। এক রঙের, মাল্টি রঙের, কাজ করা  শাল পাঞ্জাবির সঙ্গে অনায়াসেই ব্যবহার করতে পারেন। বেশি কাজ করা পাঞ্জাবির সঙ্গে হালকা কাজ করা শাল অনায়াসেই নিতে পারেন।

স্যুট

বিয়েবাড়ি হোক বা যে কোনও অনুষ্ঠান স্যুট অনেকেই পরে থাকেন। স্যুটেরও অনেক রকমের ধরন রয়েছে। ক্যাজুয়াল হোক বা ফর্মাল নিজের পছন্দমতো যে কোনও একটি নিয়ে নিতে পারেন।

জহর কোর্ট

বেশ কয়েক বছর ধরেই পুরুষদের ফ্যাশনে ইন এই জহর কোর্ট। ফর্মালের সঙ্গে হোক বা পাঞ্জাবি, জহর কোর্টের আলাদাই একটা ফ্যাশন রয়েছে। ক্যাজুয়াল লুক রাখতে চাইলে এক রঙের জহর কোর্ট পড়তে পারেন অনায়াসে। এছাড়া হালকা এক রঙের পাঞ্জাবির সঙ্গে কাজ করা জহর কোর্টও দারুণ মানানসই।

ধুতি

হাল ফ্যাশনে  ধুতি পরতে অনেক পুরুষকেই দেখা যায়। আধুনিকত্বের মধ্যেও বাঙালিয়ানার ছোঁয়া রাখতে ধুতির জুড়ি মেলা ভার। পাঞ্জাবির সঙ্গে ম্যাচ করা ধুতি পড়লে পার্টির নজর আপনার দিকেই থাকবে। চাইলে তার উপরও জহর কোর্ট পড়তে পারেন।

বেল্ট, ঘড়ি, জুতো

জামাকাপড় যেমনই পরবেন তার সঙ্গে এই তিনটি জিনিস কিন্তু মাস্ট। বেল্ট, ঘড়ি, জুতো ঠিকঠাক না করলে পুরো সাজটাই বৃথা।