নারী দিবসে মহিলাদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন। দোলের দিনে নিজের বক্তব্যের সাফাই দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ।

এবার হাতে স্যুটকেস নিয়ে রঙের উৎসবে হাজির 'করোনাসুর', হোলিকা দহনে পুড়ল কুশপুতুল

আগের দিনের মন্তব্যের রেশ টেনে এদিন দিলীপবাবু বলেন,"যেখানে আজাদি স্লোগান চলছে। পাকিস্তানের স্লোগান চলছে। মেয়েদের সামনে রেখে এসব করা হচ্ছে। আর তারা প্রকাশ্যে ড্রাগ নিচ্ছে এই ভিডিও আমরা দেখেছি। আমি এটাই বলেছি। মহিলাদের এটা কাজ নয়। যারা এই নিয়ে আমাকে সমালোচনা করছেন তার মানে তারা তাদের সমর্থন করছেন। আমি তাদের ধিক্কার দিই।"

দোল নিয়ে দুশ্চিন্তায় শান্তিপুর, ইতিমধ্য়েই এসে হাজির বিদেশিরা

এই বলেই অবশ্য থেমে থাকেননি রাজ্য বিজেপির কান্ডারি। রাজ্য়ে পুরভোটে সন্ত্রাসের আগাম সতর্কতা দিয়ে রাখেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, হোলি টা হোলি, ভোটটা ভোটের মতোই হোক, ভোটে রক্তের হোলি যেন না হয়। এদিন মেদিনীপুরে বসন্ত উৎসবে যোগ দিয়ে এই মনতব্য় করেন তিনি। সোমবার বেলা ১১ টা থেকে মেদিনীপুর শহরের বিভিন্ন অনুষ্ঠান গুলিতে তিনি যোগ দিয়েছিলেন। 

তক্ষকের খাবার জোগাতে ওষ্ঠাগত প্রাণ, আরশোলা ধরে বেড়াচ্ছে পুলিশ

মেদিনীপুর শহরের বিদ্যাসাগর হলে আয়োজিত বসন্ত উৎসবে এসে তিনি প্রাক হোলি পর্বে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনাসহ সামনের পুরো ভোট নিয়ে বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন।সাধারণ মানুষকে সম্প্রীতির উৎসবে শামিল হওয়ার আহ্বান জানিয়ে রাজ্য প্রশাসনের উদ্দেশ্যে তার মন্তব্য," হোলি টা হোলির মতোই হোক, ভোটটা ভোটের মতই হোক। ভোটে যেন রক্তের হোলি না হয়।  

পশ্চিমবাংলার ভোটের কালচারের পরিবর্তন হোক। হোলিরও শুদ্ধতা পবিত্রতা ভালবাসার পরিবেশ থাক। হোলির আগেই একটা অপসংস্কৃতি আনার চেষ্টা হয়েছে।সাধারণ মানুষের কাছে আবেদন করব এই ধরনের অপসংস্কৃতি থেকে বাংলার সংস্কৃতিকে বাঁচান।" একইসঙ্গে শাহিনবাগ এর প্রতিবাদী মহিলাদের মাদকাসক্ত হয়ে প্রতিবাদ করছেন বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।