নানকানা সাহিবে হামলার পর পেশোয়ারে শিখ যুবক খুন। পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের উপর হামলার ঘটনায় এবার কড়া প্রতিক্রিয়া দিল ভারত। উস্কানি নয় অপরাধের সঙ্গে জড়িতদের চরম শাস্তি দিক ইররান সরকার। বিবৃতি দেওয়া হল পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে। 

" পেশোয়ারে শিখ সম্প্রদায়ের যুবককে হত্যার ঘটনায় চরম দুঃখ প্রকাশ করছে ভারত, পাশাপাশি পবিত্র গুগুদ্বারে হামলার ঘটনার চরম নিন্দা করা হচ্ছে, জোর করে ধর্মান্তকরণেরও নিন্দা করে ভারত", এমনটাই বিবৃতিতে লেখা হয়েছে।

আরও পড়ুন : কেক খেয়ে বললেন 'টেস্টি', নিজের ১১৭ তম জন্মদিন পালন করলেন বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণা জাপানের কানে তানাকা

অন্যান্য দেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে নাক না গলিয়ে নিজের দেশে থাকা সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করুক পাক সরকার। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইরমান খান নিজের সরকারের সঙ্গে মোদী সরকারের তুলনা টানার পরেই ভারতের পক্ষ থেকে এমন বিবৃতি দেওয়া হল। 

আরও পড়ুন : সপ্তাহে কাজের দিন কমে হচ্ছে ৪, করতে হবে ৬ ঘণ্টা কাজ, ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

ইমরানের জমানায় পাকিস্তানে বসবাসরত শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের তরফে এমনটাই প্রচার চালান হচ্ছে। গত শুক্রবার এক শিখ কিশোরীকে জোর করে ধর্মান্তকরণে বাধা দেওয়ার জেরে পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশের ঐতিহাসিক নানকানা সাহিব গুরিদ্বারে হামলা চালায় উন্মত্ত জনতা। এই ঘটনা ঘিরে তোলপাড় হয়েছএ ভারত-পাকিস্তান দুই দেশই। এরপরেই পাক টেলিভিশনের প্রথম শিখ সংবাদপাঠক হরমিখ সিং-এর ভাইকে প্রকাশ্যে খুনের ঘটনা নতুন করে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি করেছে। 

ভারতে নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে যখন দেশজুড়ে প্রতিবাদ চলছে তখন পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের উপর এই হামলার ঘটনাকে আলাদা করে প্রচার করতে চাইছে মোদী সরকার।